November 20, 2018

৭ম শ্রেণির ছাত্রী যখন মা: বিয়ের দাবীতে আদালতে

আবুল কাশেম রুমন, সিলেট ব্যুরো: সিলেটের কানাইঘাট দিঘীরপার পূর্ব ইউপির দর্পনগর পশ্চিম পূর্বকোনাগ্রামের হত দরিদ্র এবাদুর রহমানের মেয়ে কানাইঘাট সড়কের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী মারজানা বেগম (১৩), নব জাতক সন্তান নিয়ে ন্যায় বিচারের আশায় প্রশাসনের দ্বারে-দ্বারে ঘোরছে তার পরিবার।

জানা যায়, একই গ্রামের প্রতিবেশি সৌদি প্রবাসী বাবুল আহমদ দ্বারা বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রথমে জোরপূর্বক ভাবে ধর্ষণ ও পরে একাধিকবার দৈহিক মেলামেশার ফলে কিশোরী মারজানা বেগম এর গর্ভে জন্ম নেওয়া ঔরষজাত নবজাতক সন্তানের পিতৃ পরিচয় ও বিয়ের স্বীকৃতির দাবীতে আদালতে মামলা দায়ের করেছে তার পরিবার।

অসহায় মারজানা বেগমের মা হুসনা বেগম (৪৮) তার মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দৈহিক মেলামেশার ঘটনায় জন্ম নেওয়া নবজাতক সন্তানের জন্মদাতা একই গ্রামের মৃত জামাল উদ্দিনের পুত্র সৌদি প্রবাসী বিবাহিত মোঃ বাবুল আহমদ (৩৫) এবং মারজানাকে শারীরিক ভাবে নির্যাতনের ঘটনায় বাবুল আহমদের ভাই দুলু মিয়া (৪৫), ফারুক মিয়া (৩১), প্রবাসী বাবুল আহমদের স্ত্রী সিফা বেগম (২৭) কে আসামী করে গত ২৫/১০/২০১৬ইং তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতের মামলা নং- ৫৬৯/১৬ইং দায়ের করেন।

Related posts