November 19, 2018

৫জাসদ নেতা হত্যা: নিজগ্রামে দাফন হয়নি আনোয়ার ও ঝন্টুর মরদেহ

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক কাজী আরেফ আহমেদসহ ৫জাসদ নেতা হত্যা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত তিন আসামীর ফাঁসি কার্যকর শেষে রাতেই কুষ্টিয়ায়

শেখ হাসান বেলাল,কুষ্টিয়াঃ   মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক কাজী আরেফ আহমেদসহ ৫জাসদ নেতা হত্যা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত তিন আসামীর ফাঁসি কার্যকর শেষে রাতেই যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আনোয়ার ও হাবি’র লাশ আনা হয় কুষ্টিয়ায়। আর নিজ গ্রামে কোন আত্মীয় স্বজন না থাকায় কুষ্টিয়ায় না নিয়ে ঝুন্টুর মরদেহ নেওয়া হয়েছে চুয়াডাঙ্গার উজিরপুরে। ফলে নিজগ্রাম কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা’য় দাফন করা হলো না আনোয়ার ও ঝন্টুকে।

আনোয়ার হোসেন’র লাশ দাফন করা হয়েছে কুষ্টিয়া পৌর গোরস্থানে। গোরখোদকরা জানান, শুক্রবার ভোররাতে আত্মীয় স্বজনদের মাধ্যমে পুলিশী পাহারায় অত্যন্ত গোপনীয়ভাবে তার দাফন সম্পন্ন হয়। আনোয়ার হোসেনের নিজগ্রাম মিরপুর উপজেলার কুর্শায় কোন আত্মীয় স্বজন না থাকায় তার লাশ সেখানে নেওয়া হয়নি। একই কারনে ওই গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে রাশেদুল ইসলাম ঝন্টুর মরদেহ চুয়াডাঙ্গার উজিরপুরে তার স্বজনদের কাছে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে, মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী জালাল উদ্দিন জানান, নিজগ্রামে দাফন করা হচ্ছে উপজেলার রাজপুর রাজনগর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে সাফায়েত হোসেন হাবি’র মরদেহ। বেলা ১১টার দিকে হাবি’র লাশের দাফন হতে পারে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য,১৯৯৯ সালের ১৬ ফেব্র“য়ারী কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কালিদাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সন্ত্রাস বিরোধী জনসভায় বক্তব্য দেওয়ার সময় চরমপন্থী সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে নির্মমভাবে নিহত হন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় পতাকার রূপকার ও জাসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাজী আরেফ আহমেদসহ পাচ জন জাসদ নেতা।

দীর্ঘ ১৬ বছর পর আলোচিত এ মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত তিন আসামীর ফাঁসি কার্যকর হলো। যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে গেল রাত ১১টা ১ মিনিটের সময় আনোয়ার ও হাবি’র ফাসি কার্যকর করা হয়। আর ১১.৪৫ মিনিটের সময় ঝন্টুর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts