September 23, 2018

‘৪০ আইনজীবীকে চিঠি, সংসদ নির্বাচন না দিলে হামলা চলতেই থাকবে’

ঢাকাঃ সংসদ নির্বাচন দিতে হবে তা না হলে হামলা চলতেই থাকবে‘নতুন করে সংসদ নির্বাচন দিতে হবে তা না হলে দেশে জঙ্গি হামলা চলতেই থাকবে এবং কল্যানপুরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৯ জঙ্গির ব্যাপারে কাউকে ছাড়া হবে না বলে হুমকি দিয়েছে জঙ্গিরা।

জয়পুরহাটের জেলা ও দায়রা জজ মো. আব্দুর রহিমকে ডাকযোগে চিঠি ও কাফনের কাপড় পাঠিয়ে এ হুমকি দেয়া হয়। জয়পুর হাটের ৪০ জন আইনজীবীকেও একইভাবে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। কাফনের কাপড়সহ পাঠানো এক চিঠিতে জেলার বিচারকদের হত্যা ছাড়াও আদালত ভবন, আইনজীবী সমিতি ভবন, সোনালী ব্যাংক ভবনসহ ১৮টি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বোমায় উড়িয়ে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় বিচারক আব্দুর রহিম বৃহস্পতিবার জজ আদালত, মুখ্য বিচারিক হাকিম, অন্যান্য বিচারক ও আদালত ভবনের নিরাপত্তা চেয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় জিডি করেছেন। হত্যার হুমকি দিয়ে গত ১৪ জুলাইও এই বিচারককে চিঠি পাঠানো হয়। জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডলও চিঠির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে বিচারকসহ গুরুত্বপূর্ন স্থাপনা সমূহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

থানায় দায়ের করা সাধারণ ডায়েরি (জিডি) ও আদালতের একটি সূত্রে জানা গেছে, বুধবার ডাকযোগে বিচারক আব্দুর রহিমের নামে ওই চিঠি আসে। চিঠির ভেতরে কাফনের সাদা এক টুকরা কাপড়ও ছিল। চিঠিটি হাতে লেখা। এতে বলা হয়, ‘কল্যাণপুরে তাঁদের নয়জন সদস্য নিহত হয়েছেন। এ জন্য কাউকে ছাড়া হবে না। তিন হালি পুলিশ দিয়ে লাভ হবে না। নতুন করে সংসদ নির্বাচন দিতে হবে। তা না দিলে দেশে জঙ্গি হামলা চলতেই থাকবে।’

জয়পুর হাট জেলা পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল বলেন, এর আগেও এই জেলায় একবার এরকম হুমকি দেয়া হয়েছে। আমরা প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। কিন্তু পরে এর আর কোনো ভিত্তি পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, এবারও খবর পেয়ে আমরা বিচারকের বাভবণসহ গুরুত্বপূর্নস্থাপনাগুলোতে আমরা নিরাপত্তা জোরদার করেছি। তিনি বলেন, খতিয়ে দেখতে হবে এটা প্রকৃত অর্থেই জঙ্গিদের কাজ নাকি রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে কোনো স্বার্থান্বেষীগোষ্ঠী এ হুমকি দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, চিঠিটি এসেছে ডাকযোগে। আর এটা ‘ডিটেক্ট করা ডিফিকাল্ট’ বাট ইউ আর ট্রাইং লেবেল বেস্ট।

Related posts