September 26, 2018

৩ হামলাকারী নর্থসাউথ স্কলাস্টিকার ছাত্র<<আ'লীগ নেতার পুত্র

ঢাকাঃ  গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলাকারীদের মধ্যে তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একজন দেশের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র। দু’জন অভিজাত ইংরেজি মাধ্যম বিদ্যালয় স্কলাস্টিকার ছাত্র। এ দু’জনের মধ্যে একজন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের এক নেতার ছেলে।

এদিকে হামলায় অংশগ্রহণকারীরা অত্যাধুনিক অস্ত্র ব্যবহার করেছে। এ সব অস্ত্র বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রীয় বাহিনীগুলো ব্যবহার করে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শুক্রবার রাতে সাতজন সন্ত্রাসী হামলায় অংশ নিয়েছিল বলে জানিয়েছে আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর-আইএসপিআর। এর মধ্যে যৌথ বাহিনীর অভিযানে ছয়জন নিহত এবং একজন জীবিত আটক হয়েছে।

নিহত ওই ছয়জনের মধ্যে পাঁচ জনের লাশের ছবি প্রকাশ করেছে পুলিশ। তাদের দাবি, নিহতরা জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সক্রিয় সদস্য হিসেবে পরিচিত। এদের বেশিরভাগ সদস্য দেশের উত্তরাঞ্চলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিটি হামলার সঙ্গে জড়িত।

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, হামলাকারী ছয় জঙ্গির প্রত্যেকের বয়স ২২ থেকে ৩০-এর মধ্যে। এরা হল- আকাশ, বিকাশ, রিপন, বাইক হাসান ওরফে ডন ও বাঁধন। অপর একজনের নাম জানা সম্ভব হয়নি। পুলিশও তাদের বিস্তারিত পরিচয় প্রকাশ জানায়নি।

এদিকে নিহতদের মধ্যে পাঁচজনের জীবিত অবস্থায় তোলা ছবি প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।

পুলিশ ও সাইট ইন্টিলিজেন্সের ছবির সঙ্গে সামাজিক মাধ্যমে নিহতদের অন্য ছবি মিলিয়ে তিনজনের পরিচয় জানিয়েছেন স্কুল-কলেজ সূত্রে পরিচিতজনরা।

তাদের একজন নিব্রাস ইসলাম। তিনি নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র। সাবেক সহাপাঠীরা সনাক্ত করে তার ছবি ও পরিচয় সামনে এনেছে।

আরেকজন হলেন মীর সাবিহ মুবাশ্বের। তিনি স্কলাসটিকা স্কুলের ছাত্র। এ লেভেল পরীক্ষার আগে গত মার্চে মুবাশ্বের নিখোঁজ হন বলে তার এক সহপাঠীর বরাত দিয়ে জানিয়েছেন তিনি।

তৃতীয় জন হলেন রোহান ইমতিয়াজ। তিনিও স্কলাসটিকার সাবেক ছাত্র। বাবা-মা এবং শুধু মায়ের সঙ্গে তার ছবির পাশে দেয়া হয়েছে সাইটের ছবি, যেখানে দুই ছবির মধ্যে মিল পাওয়া যায়। রোহানের বাবার নাম ইমতিয়াজ খান বাবুল। ফেসবুকে তিনি নিজেকে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক বলে পরিচয় দিয়েছেন।

ঢাকার কূটনীতিকপাড়া গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে শুক্রবার রাতে একদল অস্ত্রধারী হামলা চালিয়ে দেশী-বিদেশীদের জিম্মি করে। পরে শনিবার সকালে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কমান্ডো অভিযানের মধ্য দিয়ে এই জিম্মি সংকটের অবসান হয়।

সেখান থেকে ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার এবং ২০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতদের মধ্যে ১৭ জনই বিদেশী বলে আইএসপিআর জানায়।

সূত্রঃ  অনলাইন বাংলা

Related posts