September 25, 2018

২৫৯ তম পলাশী দিবস অনুষ্টিত

রিপন হোসেনঃ  পলাশী দিবস-২০১৬ স্বরণে বাংলা-বিহার উড়িষ্যার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজউদ্দৌলার ২৫৯ তম পলাসী ট্র্যাজেডী দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা লাভ-বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে আজ ২৩ জুন দুপুরে নগরীর লাভলেইনস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্টিত হয়। এতে সভপতিত্ব করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান দৈনিক আমাদের চট্টগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সাংবাদিক মিজানুর রহমান চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন । সংগঠনের উপদেষ্টা শফিকুল ইসলাম , সাংবাদিক হাসান মুকুল , ইতিহাস গবেষক সোহেল মো: ফখরুদ্দীন , সাংবাদিক আবুহেনা (খোকন) , সাংবাদিক বজলুল হক প্রমূখ।

সভায় বক্তারা বলেন , ১৯৫৭ সালে ইংরেজ বোনিয়াদের সাথে এ দেশীয় কতিপয় ক্ষমতালোভী বিশ্বাসঘাতকের ষড়যন্ত্রে বাংরার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজদ্দৌলাকে করুনভাবে প্রান দিতে হয।এবং বাংলার স্বাধীনতার সুর্য ১৯০ বছরের জন্য অস্তমিত হয়। সেদিন মীরজাফর , জগৎশেট , ইয়ার লতিফ , ঘষেটি বেগম ,রায় র্দুলভরা ক্ষমতার লোভে ষড়যন্ত্র না করলে উংরেজ দূবৃত্তরা এ দেশের স্বাধীনতা হরণের সুযোগ পেতোনা। ষড়যন্ত্রকারীরা সেদিন বাংলার স্বাধীনতার শেষ প্রতীক নবাব সিরাজদ্দৌলাকে অজনপ্রিয় করতে তার চরিত্রে কালিমালেপনের ঘৃন্য ষড়যন্ত্র করেছিল। নবাব সিরাজদ্দৌরা মাত্র ১৫ মাস৭ দিন বাংলার মসনদে ছিলেন। তাঁর মাতামহ নবাব আলীবর্দি খান নবাবকে ক্ষমতায় বসানোর সময়বলেছিলেন তোমার বিরুদ্ধে ইংরেজরা ষড়যন্ত্র করছে। আমি অনেক দিন বেচে থাকলে তোমাকে এ সমস্যা তেকে উত্তরণে সহায়তা করতে পারতাম। নবাব আলীবর্দ্বি খান নবাবকে ঘরের ও বাইরের ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সচেতন করে ছিলেন। মসনদে বসার পর থেকেই নবাব ষড়যন্ত্র দমনে সচেষ্ট ছিলেন ।

নবাবের প্রতিদিনের রোজনামচা থেকে এ বিষয়গুলো ইতিহাসে স্থান দেয়ার মাধ্যমে নবাবের উপর অর্পিত কলংক তেকে তাকে মুক্তকরা যেতো। এখনো বাংলাদেশের বিরুদ্ধে স্বাধীনতা  সার্বভৌমত্ব নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে । উল্লেখ করে এ দেশের প্রতিটি দেশ প্রেমিক নাগরিককে এগিয়ে আসার জন্য বক্তাগণ আহ্বান জানান।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৩ জুন ২০১৬

Related posts