September 23, 2018

১০ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও বাস্তবায়ন হয়নি ফুলবাড়ীবাসির সাথে ৬ দফা চুক্তি!

মোঃ মেহেদী হাসান
দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ
আজ ২৬শে আগস্ট ফুলবাড়ী দিবস, ফুলবাড়ী গণ আন্দোলনের ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও বাস্তবায়ন হয়নি ফুলবাড়ীবাসির সাথে সম্পাদিত ৬ দফা চুক্তি।

আজকের এই দিনে ২০০৬ সালের ২৬শে আগস্ট দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে উন্মুক্ত পদ্বতিতে ফুলবাড়ী কয়লা খনি বাস্তবায়নের প্রতিবাদে, উন্মুক্ত পদ্ধতিতে খনি বাস্তবায়নের প্রস্তাবকারি এশিয়া এনার্জি নামক একটি বহুজাতিক কোম্পানীর ফুলবাড়ীর অফিস ঘেরাও কর্মসুচি পালন করতে গেলে, নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মিছিলের উপর টিয়ারশেল ও গুলিবর্ষন করে। এতে তরিকুল ইসলাম, আমিন ও সালেকিন নামে ৩যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। একই ঘটনায় আহত হয় আরো ৩শতাধিক মিছিলকারি। এদের মধ্যে বাবলু রায় নামে একজন চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করেন। এরপর ফুলবাড়ী বাসির গণ আন্দোলনের মূখে তৎকালীন সরকার ফুলবাড়ী বাসির সঙ্গে ৬ দফা শর্তে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেন। যা ফুলবাড়ী ৬ দফা চুক্তি বলে পরিচিত। এরপর থেকে এই দিনটিকে ফুলবাড়ী বাসি ফুলবাড়ী দিবস হিসেবে পালন করে আসছে এবং সেই সময়ের সম্পাদিত ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য আজোও পৃথকভাবে পৃথক কর্মসুচিতে আন্দোলন করে আসছে ফুলবাড়ীর অরাজনৈতিক, সম্মিলিত পেশাজীবি সংগঠনও তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি।

২০০৬সালের ২৬শে আগষ্টের গণআন্দোলনের নেতা ও সম্মিলিত পেশাজীবি সংগঠনের আহবায়ক বর্তমান পৌরমেয়র মুরতুজা সরকার মানিক ২০০৬ সালের ২৬শে আগস্ট ফুলবাড়ীসহ পার্শ্ববর্তী বিরামপুর, নবাবগঞ্জ ও পার্বতীপুর উপজেলার অধিকাংশ এলাকার বাসিন্দারা শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল করতেছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মিছিলের উপর নির্বিচারে গুলি চালায় যা দুঃখজনক। তিনি আরোও বলেন, ২৬শে আগষ্টের পর তৎকালিন বিরোধীদলীয় নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ফুলবাড়ীতে এসে ফুলবাড়ীর মানুষকে সালাম দিয়েছিল এবং ৬দফা চুক্তির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষনা করে বলেছিলেন তিনি ক্ষমতায় গেলে ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়ন করবেন। এজন্য তিনি তার দেয়া অঙ্গিকার বাস্তবায়নের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি কামনা করেন।

তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, ২৬শে আগস্টের পর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তৎকালিন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনা ফুলবাড়ীতে এসে ফুলবাড়ীর বীর জনতাকে লাল স্যালুট দিয়ে ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়নের দাবী জানিয়েছিল। কিন্তু তিনি ক্ষমতায় যাওয়ার পর সেই চুক্তি আজও বাস্তবায়ন করেননি। এ জন্য তিনি ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি ও প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান এবং তিনি বলেন, ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়ন না হলে আবারোও ২০০৬ সালের ২৬ আগষ্টের ন্যায় একটি গণআন্দোলন গড়ে তুলে ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়ন করতে সরকারকে বাধ্য করা হবে।

আরও খবর…।।

ফুলবাড়ী ২৬ শে আগস্টের শহীদ পরিবারের কেউ খবর রাখে না

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ২০০৬ সালের ২৬শে আগস্ট ঘটে যাওয়া গণ আন্দোলনের ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও কেউ খবর রাখেনি শহীদ পরিবারগুলোর। এখনও হত্যার বিচারের আশায় পথ চেয়ে আছে শহীদদের স্বজনেরা।

২৬শে আগস্টের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে নিহত রাজশাহী কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র তরিকুল ইসলামের মা মোছাঃ তহমিনা বেগম আজ ও ছেলের ছবি বুকে নিয়ে কাঁদছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার পৌরশহরের চাঁদপাড়া গ্রামে তরিকুলের বাড়ীতে গেলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তার মা। তিনি বলেন, ছেলে হত্যার বিচার আমি কার কাছে চাইবো। কার জন্য আমার ছেলেকে হারাতে হয়েছে। তিনি বলেন, আমার ছেলে হারিয়ে গেলেও কেউ আমার বা আমাদের খোঁজ রাখেনি। অথচ আমার ছেলের নাম নিয়ে মিছিল ,মিটিং হয়। কিন্তু সেই মিছিল মিটিংয়ে আমাদেরকে ডাকা হয়না। একই কথা বলেন, বারকোনা গ্রামের আমিন এর বাবা আব্দুল হামিদ ও সালেকিন এর মা সালমা বেগম।

শহীদদের স্বজনেরা জানায়, আমাদের ছেলেরা বাড়ী থেকে বেরিয়ে গেছে আর ফিরে আসে নাই। তাদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে সেই বিচার তারা পাননি। এমনকি যারা আজকে ২৬শে আগস্টকে নিয়ে আন্দোলন করছে তারাও কোনো খোজ করেনি বলে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ জন্য তারা সেই দিনের ঘটনার সুষ্ঠ্য তদন্ত সাপেক্ষে বিচারের দাবী জানান।

Related posts