September 20, 2018

১০ টাকার চাল নিয়ে দুর্নীতি: গরীবের চাল খাচ্ছে বিত্তশালী

মোঃ আজিজুর রহমান ভূঞা বাবুল, ময়মনসিংহ ব্যুরোঃ ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড মেম্বার মরতুজ আলী একজন সচ্ছল মানুষ হিসেবেই এলাকায় পরিচত। মেম্বার নির্বাচিত হওয়ার আগে তার এলাকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিলেও বর্তমানে সে চিত্র ভিন্ন। এলাকার প্রকৃত গরীব ও দরিদ্রদের বাদ দিয়ে নিজের পরিবারের ১০ সদস্যদের মধ্যে ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রির কার্ড চালু করেছেন। শুধু তাই নয় প্রবাসীসহ এমন ব্যক্তির নামে ভুয়া কার্ডইস্যু করে ১০ টাকা কেজি দরের চাল উত্তোলন করা হচ্ছে, তারা অনেকেই জানানে না তাদের নামে দরিদ্রদের ১০ টাকা দরের চাল বিক্রির কার্ড রয়েছে। বিষয়টি হাস্যকর হলেও দুঃখজনক। আর এ ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে ঈশ্বরঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নের মেম্বার, ডিলার, ধনাট্য এবং প্রভাবশালী ব্যক্তিও রয়েছেন।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার মরতুজ আলীর স্বাক্ষরে ১০ টাকা কেজি দরে দরিদ্রদের চাল বিতরণ হচ্ছে তারই পরিবারের ১০ সদস্যের নামে। এ তালিকায় রয়েছে, মেম্বারের ২ ছেলে জাহাঙ্গীর আলম কার্ড নং ২৩৯২, আলমগীর ২৩৯৬, পুত্রবধূ মহুয়া আক্তার কার্ড নং ২৪২৯, ভাই আব্দুছ সাত্তার কার্ড নং ২৪৪৯, তার ভাইয়ের স্ত্রী ঝরনা কার্ড নং ২৪৪৮, আব্দুছ ছামাদ কার্ড ২৫৩৫, তার পুত্রবধূ কল্পনা কার্ড নং ২৫৩৭, ভাতিজার স্ত্রী তানিয়া কার্ড নং ২৬০৪ এবং তার ভাইয়ের ছেলে মানিক কার্ড নং ২৪৩০। মরতুজ মেম্বারের করা তালিকায় একই ওয়ার্ডের এক পরিবারের ১২ জনের নামে কার্ড করা হলে ১০ টাকা কেজি দরের চাল উত্তোলন করছে শুধু কার্ড নং ২৪৭৫ (আছিয়া), ২৪৭৬ (মমতা), এবং ২৪৭৪ (রফিকুল) নুরুনাহার ,(২৫১৫) হালেমা (২৫১৬) মাজেদা (২৫১৭) ।

বাকিরা কেউ জানেনা তাদের কার্ডের চাল কারা তোলে নিচ্ছে। এ ব্যাপারে মরতুজ মেম্বারের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তাকে এলাকায় পাওয়া যায়নি । একাধিক বার তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
একই চিত্র উচাখিলা ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার গোলাম মোস্তফার ক্ষেত্রেও। তার করা তালিকায় রয়েছে চাল বিক্রির কার্ডধারীদের মধ্যে বয়সের অসঙ্গগতি। তার ইউনিয়নের দিনমজুর তালিকায় নাম রয়েছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প ম শ্রেণীর ছাত্র রিয়াদ (৪০ বছর) কার্ড নং ৪২৩; রিয়াদের পিতা সুরুজ মিয়া (৫০) কার্ড ৩০২, মরিচারচর উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী রিমি আক্তার (বয়স ৮২ বছর) কার্ড নং ৪২৫, রিমির পিতা জামাল উদ্দিন (৪১) কার্ড নং (২৮৫), তার স্ত্রী রহিমা খাতুন (৩২) কার্ড নং ২৯০। তারা ভুয়া কার্ডধারী হিসেবে মোস্তফা মেম্বারকে হাত করে ওএমএসের ১০ টাকা কেজি দরের চাল উত্তোলন করছেন। এছাড়া মেম্বার পরিবারের ধনাট্য ব্যক্তি মঞ্জুরুল (২৯) কার্ড নং ৩০১, তার স্ত্রী জুলেখা (৩০) কার্ড নং ৩০০, ছেলে মরিচারচর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ফাহিম (৮০) কার্ড নং ৪২৫এর নাম দরিদ্রদের তালিকায় রয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ১০ কেজি দরের চাল বিতরণের ক্ষেত্রে অনিয়ম ও ভুয়া কার্ড প্রাপ্তদের তালিকা প্রণয়নকারী মেম্বারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীব কুমার সরকার এর কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অপরদিক্ষে রাজিপুর ইউনিয়নে ডিলার এমদাদুল হক ফকির চাল উত্তোলন করার ৭ সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও হতদরিদ্রদের চাল বিতরণ করেনি বলে স্থানীয় এলাকাবাসীর অভিযোগে জানা যায়।

লাটিয়ামারি বাজারে চাল বিতরনের কথা থাকলেও ডিলার তার সুবিধা মত নিজ বাড়ির কাছে চাল বিতরণ করেন। স্থানীয়দের অভিযোগের ভিক্তিতে ইউপি চেয়ারম্যান মদাবিরুল ইসলাম জানান, ভূক্ত ভোগীদের সুবিধা মত লাটিয়ামারি বাজারেই চাল বিতরন করতে হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এতসব অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে বলা হয়েছে।##

ময়মনসিংহের আরো সংবাদঃ 
 ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ।। কনের বাবাকে জরিমানা

ময়মনসিংহ ব্যুরোঃ
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের গোবিনাথপুর গ্রামে শুক্রবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও মর্জিনা আক্তারের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পায় এক স্কুল ছাত্রী।
এ সময় বাল্যবিয়ের দায়ে কনের পিতা আব্দুল মান্নানকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
জানা গেছে, ঘটনারদিন উক্ত গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে স্থানীয় স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী মারিয়ম বেগমের সাথে পার্শ্ববর্তী ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দত্তপাড়া এলাকার আবুল হাশিমের ছেলে সুমন মিয়ার বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল।

এসময় প্রশাাসনের উপস্থিতি টের পয়ে বর ও সহযাত্রীরা পালিয়ে যায়। পরে কনের বাবাকে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।##

ময়মনসিংহের ত্রিশালে চালক শ্রমিক নেতাকে আটক করায় মহাসড়ক অবরোধ
ময়মনসিংহ ব্যুরোঃ
ময়মনসিংহের ত্রিশালে গেইটলক বাসের এক চালক নেতাকে আটক ও থাপ্পর মারায় মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে গেইটলক সার্ভিসের শ্রমিকরা।
শুক্রবার (১১ নভেম্বর) একঘণ্টা অবরোধ চলাকালে সড়কের দু’পাশে শত শত যানবাহন আটকে পড়ায় যানজটে যাত্রীরা চরম নাকাল হয়। পরে জড়িতদের বিচারের আশ্বাসে শ্রমিকদের অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়।
জানাযায়, সকাল ১১ টার দিকে ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ডে মোড়ে ত্রিশাল গেইটলক সার্ভিসের একটি বাস (ঢাকা-মেট্রো চ-৭৩৫৩)
ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড হতে ছাড়ার সময় কয়েক যাত্রীর সাথে বাসের চালক ও শ্রমিকদের বাকবিতন্ডা হয়। এসময় বাস চালক ও শ্রমিকরা শফিকুল ইসলাম নামে এক যাত্রীসহ কয়েকজন যাত্রীদের মারধর করে।
এই ঘটনায় ত্রিশাল থানার এস আই জুবাইদুল এগিয়ে গিয়ে বাস চালককে থাপ্পর মারলে পাশে থাকা ফারুক নামে আরেক চালক কেন তাকে থাপ্পর মারা হলো এ নিয়ে পুলিশের সাথে তর্কাতর্কি ও বাকবিতন্ডা বাধালে ত্রিশাল থানার এসআই জুবাইদুল, এসআই লিটন ও এসআই আবু সিদ্দিক বাসস্ট্যান্ড থেকে চালক ফারুককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে গেইটলক সার্ভিসের উত্তেজিত শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহা সড়কের ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড মোড়ে কয়েকটি বাস দাঁড় করিয়ে বেরিকেট দিয়ে ঢাকা- ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে।
একঘণ্টা অবরোধ চলাকালে সড়কের দু’পাশে আটকে পড়া শতশত যানবাহনে যাত্রীদের যানজটে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। পরে ত্রিশাল থানার ওসি মনিরুজ্জামান, মটরযান মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল সরকার জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাদের বিচারের আশ্বাস দিয়ে আটককৃত চালক ফারুককে ছেড়ে দিলে বেলা ১২ টার দিকে অবরোধ তুলে নিলে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
এব্যাপারে ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান জানান, যাত্রী ও বাস চালকের মাঝে মারামারির ঘটনায় দারিত্বরত পুলিশ এগিয়ে গেলে পুলিশের সাথে চালক ও শ্রমিকদের ভূল বুঝাবুঝির ঘটনায় শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে। পরে শ্রমিক ও শ্রমিক নেতাদের সাথে কথা বলে সমস্যা সমাধান করা হয়েছে।##
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ইয়াবাসহ গ্রেফতার এক
ময়মনসিংহ ব্যুরোঃ
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। বৃহস্পতিবার রাতে ঈশ্বরগঞ্জ হাসপাতাল রোড এলাকা থেকে সুমন মিয়া নামে ওই মাদক ব্যবসায়ীকে ১ শ’ ৯৫ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার করেছে ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ। ধৃত ব্যক্তি নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার জলিক গ্রামের বাসিন্দা।
শুক্রবার (১১ নভেম্বর) তাকে ময়মনসিংহের আদালতে প্রেরণ করা হয় বলে ঈশ্বরগঞ্জ থানা ওসি বদরুল আলম খান জানান।##

ময়মনসিংহে পরিচ্ছন্নতা অভিযান উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক 
ময়মনসিংহ ব্যুরোঃ

‘পরিচ্ছন্ন ময়মনসিংহ’ এই শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে ময়মনসিংহ সার্কিট হাউস মাঠ থেকে ‘পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম’-এর উদ্বোধন করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ খলিলুর রহমান। শুক্রবার (১১ নভেম্বর) বিকাল ৩টায় এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, পৌরসভার মেয়র ইকরামুল হক টিটু, জেলা নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান খান প্রমুখ।

শহরের ছয়টি স্থানে পরিচালিত অভিযানের নেতৃত্ব দেয় ছয়টি গ্রুপ। ছয়টি গ্রুপের মধ্যে মহিলাদের গ্রুপটি সার্কিট হাউস মাঠে কাজ করেন। আর এ গ্রুপের কাজ উদ্বোধনের মধ্যেই পরিচ্ছন্নতা কর্মসুচীর উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক।##

 

Related posts