September 20, 2018

হাস্যোজ্জল নূর হোসেন; এটা কিসের ইঙ্গিত?

Nur Hossain oF Seven muder

বহুল আলোচিত নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মালালার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে তোলার সময় তিনি ছিলেন অনেকটা হাস্যোজ্জল ও স্বাভাবিক। তার ভিতরে কোন ভয় কাজ করছিল না। মুখমণ্ডল ছিল ক্লিন সেভ, চেহারায় ছিল জৌলুস। মাথার চুল ছিল সাজানো-গোছানো। পরনে জামাটিও বেশ ছিল পরিপাটি।

নূর হোসেনের হাস্যেজ্জোল চেহারা দেখে জনমনে সৃষ্টি হয়েছে রহস্য। নূর হোসেনকে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইন থেকে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থায় নারায়ণগঞ্জ আদালতে নেওয়া হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জানান, নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইন থেকে হাতকড়া পরিয়ে তাকে আদালতপাড়ায় নিয়ে আসা এবং মামলার শুনানিকালে আদালতের কাঠগড়ায় প্রায় ১০/১২ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকার সময় নূর হোসেন ছিলেন অনেকটা স্বাভাবিক ও সাবলীল। সাত খুনসহ একাধিক অপকর্মের নায়ক নূর হোসেনের মধ্যে কোনো অপরাধবোধের ছাপ লক্ষ্য করা যায়নি।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, নূর হোসেনকে যখন আদালতে তোলা হয় তখন চারদিকে তার ফাঁসির দাবিতে স্লোগান চলছি। কিন্তু এতে তার চোখে-মুখে কোনো ভীতির ছাপ লক্ষ্য করা যায়নি। উল্টো তিনি সবখানেই ছিলেন হাস্যোজ্জল।

গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় যশোরের পেট্রাপোল সীমান্ত এলাকা দিয়ে পুশব্যাকের মাধ্যমে নূর হোসেনকে র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করে ভারতীয় বিএসএফ। পরে তাকে র‌্যাব, পুলিশের কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্য দিয়ে বেনাপোল থেকে সরাসরি ঢাকা উত্তরা র‌্যাব-১ হেডকোয়াটারে নিয়ে আসা হয় ভোর ৬টা ৪৫ মিনিটে। পরে র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের প্রধান মুফতি মাহমুদ উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে ভারত থেকে নিয়ে আসা হয়েছে। র‌্যাব কার্যালয়ে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে তাকে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হবে। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে নূর হোসেনকে হাজির করা হলে নূর হোসেনকে হাসিমুখে দেখা যায়।

পরে র‌্যাব পুলিশের ১২ জিপ ও মাইক্রোবাসের কড়া প্রহরায় নূর হোসেনকে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইনে আনা হয়। সেখান থেকে দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে রওনা হয়ে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থায় ২টা ৩৬ মিনিটে নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল ইসলামের আদালতে তোলা হয়। আদালতে শুনানি চলছিল প্রায় ১০/ ১২ মিনিট কিন্তু নূর হোসেন ছিলেন হাস্যোজ্জল ও স্বাভাবিক।

এ ব্যাপারে আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন,ফেসবুকসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স মিডিয়াতেও নূর হোসেনের হাস্যোজ্জল ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। আর এই ছবিই বলে দেয় নূর হোসেনের পেছনে রয়েছে প্রভাবশালীদের ছায়া। সাত খুন মামলার সুষ্ঠু বিচার নিয়ে এখনো সন্দীহান এই আইনজীবী।

গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts