September 19, 2018

হাত কর্তন করল নামায না পড়াই!

পাকিস্তানে স্থানীয় এক ইমামের নির্দেশে ১৫ বছরের এক বালাকের কব্জিসহ হাত কেটে নিয়েছে গ্রামবাসী। লাহোরের কাছে এক গ্রামে এই মর্মান্তিক অপরাধ সংঘটিত হয়েছে বলে ডন পত্রিকা জানিয়েছে। তবে এ ঘটনায় কোনো মামলা দায়ের না করায় কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

চার দিন আগের ঘটনা। গ্রামের মসজিদ প্রাঙ্গনে সমবেত হয়েছেন বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ। মসজিদের ইমাম তাদের নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে বয়ান করছিলেন। তিনি বলেন, যারা মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (স.) ভালবাসেন তারা নিয়মিত নামাজ আদায় করে থাকেন। এরপরই তিনি প্রশ্ন করেন,‘এখানে এমন কেউ আছেন কি যিনি নামাজ পড়েন না? থাকলে হাত তুলেন।’ তখন গ্রামের এক বালক হাত তুলে। সে আসলে নিয়মিতই নামজ পড়ে থাকে। কিন্তু হুজুরের কথা ঠিকভাবে শুনতে না পারায় সে ভুলে হাত তুলেছিল।

কিন্তু উপস্থিত জনতা তখন ইমানি জোসে কম্পমান। তাদের কি ভালো মন্দ বা সত্যি মিথ্যা যাচাই করার সময় আছে! তারা ছুটে গিয়ে ওই বালককে ঝাপটে ধরে তার একটি হাত কেটে নেয়। পরে তারা একটা প্লেটে করে রক্তমাখা সেই কর্তিত হাত ওই মসজিদের ইমামের সেবায় হাজির করেন।

গত মঙ্গলবার পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানী লাহোর থেকে ১২৫ কিলোমিটা দূরের এক গ্রামে এ পাশবিক ঘটনাটি ঘটে বলে এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এ ঘটনার ওপর ধারণকৃত এক ভিডিও থেকেই পুলিশ ঘটনাটি জানতে পেরেছে বলেও তিনি দাবি করেছেন। তবে এ ঘটনায় কেউ কোনো মামলা না করায় তারা দায়ী ব্যক্তিদের আটক করেনি বলে আত্মপক্ষ সমর্থন করেছে পুলিশ। কিন্তু আমরা জানি, এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনায় রাষ্ট্র বাদী হয়ে মামলা করার বিধান রয়েছে সব দেশেই। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে দেশটি পাকিস্তান। আর এ কারণেই সেখানে অহরহ এ ধরনের অপরাধ ঘটে থাকে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts