November 15, 2018

স্বাধীনতার ৪৫ বছরে কি পেলাম আমরা?

26 march

ইলিয়াছ মাহমুদ: একাত্তরের ২৬ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর—এই নয় মাসের লড়াই ও ত্যাগের বিনিময়ে পৃথিবীর মানচিত্রে নতুন একটি দেশের জন্ম হলো—বাংলাদেশ। আমরা স্বাধীন হয়েছি। একটি পতাকা, সার্বভৌমত্ব, একখণ্ড স্বাধীন ভূমি পেয়েছি। কিন্তু স্বাধীনতার আজ ৪৫ বছর পর এসে একটা কথা শুধু, প্রকৃত যে স্বাধীনতা তা আজও পাইনি। লাখ লাখ মানুষের রক্তের স্রোত বেয়ে যে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে, যে দেশের স্বপ্ন নিয়ে স্বাধীন করেছে তা ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। এর কারণ কী? কেন আমরা বারবার পিছিয়ে পড়েছি?আজ পদে পদে কেন দুর্নীতি? মানুষের অধিকার নেই কেন কোথাও? আজও কেন আমার বোন ধর্ষিত হচ্ছে? আজও কেন মানুষ রাস্তার পাশে ঘুমায়? দু’বেলা খাবার পায় না। প্রতিদিন কেন মানুষের লাশ পড়ছে? সমাজের ভালো মানুষদের কেন এত হেনস্থা করা হচ্ছে? কেন শাসক শ্রেণীর এত ঔদ্ধত্য? সংবাদপত্রের অধিকার কেন হরণ করা হচ্ছে? এই কি স্বাধীনতার চেতনা? ৯০ ভাগ মুসলমানের এই দেশের সংবিধান  থেকে কেন রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র হচ্ছে? কেন ওরা আমার ধর্মকে কেরে নিতে চাচ্ছে?  আজ কিছু ভণ্ড লোক স্বাধীনতার চেতনা বলে চিত্কার করছে। অথচ নিজেরাই আড়ালে নানাভাবে দেশের সঙ্গে বেঈমানি করছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে জাতির সামনে নিজেদের খুব দেশপ্রেমিক হিসেবে উপস্থাপন করছে। সংবিধান  থেকে ইসলামি ভাবাদর্শকে  মুছে ফেলে দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতার যুক্তি দেখাচ্ছে। ওইসব মুসলিম নামধারী নাস্তিক আজ ইসলামের ওপর আঘাত হেনেছে। যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে তা আজ কেউ মনে করছে না। যে অধিকারের জন্য মানুষ জীবন দিয়েছে তা আজ মিলিয়ে গেছে ওইসব অন্যায়ের কাছে। যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় জীবন দিয়েছেন সেসব মানুষকে আজ অপমান করা হচ্ছে, তাদের চেতনাকে পদদলিত করে। তাই আজ ৪৫ বছর পর এসেও চিত্কার করে বলতে হয়—কেন মানুষ দু’মুঠো ভাত পায় না। কেন কিশোরী বোনের ধর্ষিত মুখ দেখব। কেন বাকস্বাধীনতা কেড়ে নেয়া হয়েছে। তাহলে তো বলতে পারি, পাকিস্তান শাসনামলে যে সমস্যাগুলো ছিল, আজ আবার সেই সমস্যাই দেখা দিয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আবেদন, যে চেতনা নিয়ে, যে আশা নিয়ে যুদ্ধ করেছেন তা আজ কোথায়? আমরা অধিকার পাইনি। আমরা আজও ভাইয়ের লাশ নিয়ে মিছিল করি, ধর্ষিত বোনের চোখের পানি দেখি কেন? এর জবাব চাই।  আজ ৪৫ বছর পর এসেও একথা ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বলতে হয়। সুখী, সমৃদ্ধিশালী, সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয় নিই আমরা আজ।

ডেস্ক রিপোর্টার, দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম

Related posts