December 13, 2017

স্ত্রী ও সন্তান কর্তৃক প্রবাসীর টাকা আত্মসাত ও বর্বর নির্যাতন

মোঃ আঃ রহিম রেজা, রাজাপুর (ঝালকাঠি) প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরের বদরপুর গ্রামে প্রবাসী ফেরত স্বামী ইকবাল কবির ওরফে বাদল গোমস্তাকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের প্রতিবাদে গতকাল রাতে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি লিখিত অভিযোগ করেন, তার স্ত্রী রেহেনা পারভীন শিখা ও তার সন্তান শফিকুল ইসলাম ইমরান গত ২১/০৩/১৬ তারিখ দুপুরে টাকা আত্মসাতের জন্য তার গুড়া মরিচ দিয়ে অচেতন করে বেধরক পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতবিক্ষত করে শিকল দিয়ে জানালার সাথে আটকিয়ে একটি কক্ষে তালাবদ্ধ করে রাখে।

পরের দিন প্রবাসী ফেরত ইকবাল কবির ওরফে বাদল গোমস্তার জামাতা ইকবাল মীর এসে তাকে তালা ভেঙে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় নির্যাতনকারী স্ত্রীর বোনের স্বামী নাসির খান এ্যাম্বুলেন্সে করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। আইনী জটিলতার ভয়ে তার শরীরের ক্ষত না সারতেই হাসপাতাল থেকে নাসির খানের বাসায় নিয়ে আটকিয়ে রাখে। পরে তিনি সেখান থেকে কৌশলে পালিয়ে তার এক খালাতো ভাইকে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও অভিযোগ করেন, ইকবাল কবির ওরফে বাদল গোমস্তা ২৪ বছর সৌদিতে চাকুরীরত অবস্থায় ব্যাংক ও বিভিন্ন লোক মারফত প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা স্ত্রীর কাছে পাঠায় এবং প্রায় ৩ বছর পূর্বে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

তিনি দেশে ফিরে এসে স্ত্রীর কাছে ওই টাকার হিসেব নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে কলহ চলছিলো। ঘটনার দিন স্ত্রী ও সন্তান মিলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাকে মধ্য যুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়। বর্তমানে তার শরীরের নির্যাতনের বিভিন্ন ক্ষতস্থানে পঁচন ধরেছে, অর্থাভাব ও নিরাপত্তাহীনতার কারনে তিনি চিকিৎসাও নিতে পারছেন না বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন।

বর্তমানে তিনি গুম ও হত্যার আতঙ্কে ভুগছেন। তিনি র‌্যাব, পুলিশ ও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মোঃ আঃ রহিম রেজা
রাজাপুর, ঝালকাঠি।

Related posts