September 25, 2018

‘সৌভাগ্যের জন্য শিশুর গায়ে গোবর লেপন’

এভাবেই শিশুদের গায়ে গোবর লেপন করা হয়।

দিল্লি ডেস্কঃ সৌভাগ্যের জন্য মানুষ জ্যোতিষীর কথা অনুযায়ী ধাতুর আংটি পরা, নির্দিষ্ট পাথর ব্যবহারসহ কতকিছু পালন ও মেনে চলা। সৌভাগ্যের জন্য ভারতীয়রাও কম যান না। ধাতব মুদ্রা থাকা মাটির ব্যাংক সদর দরজামুখী রাখা, হাসিমুখের বুদ্ধমূর্তির ভুঁড়িতে মিনা ঘষাসহ অনেক অদ্ভুত কাজ প্রচলিত আছে ভারতে। সৌভাগের জন্য এসবের সঙ্গে নতুন করে যুক্ত হলো শিশুদের গায়ে গোবর লাগিয়ে দেওয়া।

ভারতের মধ্যপ্রদেশে বেতুল নামক গ্রামে সৌভাগ্যের জন্য শিশু সন্তানকে গোবরের মধ্যে ফেলা হয়। এভাবেই শিশুদের গায়ে গোবর লেপন করা হয়। বেতুল গ্রামের অধিবাসীদের বিশ্বাস, গোবরের ‘পবিত্রতা’ শিশুদের মধ্যে চলে আসে। তাই শিশুর গায়ে গোবর লেপন করা হলে তাদের স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। একই সঙ্গে এরা হবে সৌভাগ্যবান।

সাধারণত প্রতিবছর দিওয়ালির একদিন পর বেতুল গ্রামের শিশুদের গায়ে গোবর লেপনের আয়োজন করা হয়। গ্রামবাসী গরুর গোবর সংগ্রহ করে কোনো স্থানে জড়ো করে। সকালে বিশেষ প্রার্থনার পর এক বছর বয়সের ওপরে শিশুদের গোবরের মধ্যে ফেলা হয়। গ্রামবাসী লাইন ধরে নিজের শিশুকে গোবরে ফেলার জন্য অপেক্ষা করেন। সাধারণত সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিশুর গায়ে গোবর লেপনের এই আয়োজন চলে।

হিন্দু ধর্মবিশ্বাস অনুযায়ী, গরু পবিত্র প্রাণী। গরুর মূত্র ও গোবরে রোগ সারানোর ক্ষমতা আছে বলে দাবি করেন অনেক হিন্দু পুরোহিত।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts