April 21, 2019

সিলেটে নিরাপত্তা জোরদার<<পথে পথে চলছে তল্লাশি

ঢাকাঃ  ঢাকায় হামলার ঘটনায় সিলেটে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বসানো হয়েছে নিরাপত্তা চৌকি। পথে পথে চলছে তল্লাশি। একই সঙ্গে যেসব এলাকায় বিদেশিরা বসবাস করে সেসব এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মসজিদ, মাজার ও মন্দির এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে। গোয়েন্দা নজরদারিও বাড়ানো হয়েছে। সিলেটে রমজানের শেষদিকে এসে ঈদের বাজার জমে উঠেছে। এ কারণে এখন প্রতিদিন দুপুর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতা-বিক্রেতার পদভারে মুখরিত থাকে সিলেট নগরী। কিন্তু ঢাকার ঘটনায় প্রবাসী শহর সিলেটের মানুষ এখন হতবাক। হঠাৎ করেই যেন ছন্দপতন নেমেছে ঈদের বাজারে। বৃহস্পতিবার রাতে হোটেলে হামলার খবর সিলেটে পৌঁছার পর থেকে আতঙ্ক দেখা দেয়। রাস্তায় রাস্তায় পুলিশের টহল সক্রিয় হয়। এতে আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে রাস্তায় যানবাহন ও লোকজনের যাতায়াত কমে আসে।

সিলেট মেট্রোপলিশন পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ঢাকার ঘটনার পরপরই সিলেটের পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগরীতে টহল জোরদার করা হয়। বাড়ানো হয় গোয়েন্দা নজরদারি। বিশেষ করে নগরীর সব প্রবেশমুখে নিরাপত্তা চৌকি বসিয়ে সন্দেহভাজনদের তল্লাশি করা হয়। পাশাপাশি নগরীর কাজিরবাজার সেতু, টুকেরবাজার, শাহজালাল সেতুতেও পুলিশের পক্ষ থেকে তল্লাশি চালানো হয়। সিলেট নগর পুলিশের কয়েকজন সিনিয়র কর্মকর্তা নিরাপত্তার বিষয়গুলো মনিটরিং করছেন। এদিকে, প্রবাসী শহর সিলেটে যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে কারণে হোটেল রোজভিউ, স্টার প্যাসিফিক, সুপ্রিম, হোটেল মেট্রো, নাজিমগড় রিসোর্টসহ কয়েকটি হোটেল ও রেস্টহাউসের মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছে পুলিশ। সিলেটে এলেই বিদেশিরা এসব হোটেলে থাকেন। এ কারণে বিদেশিদের নিরাপত্তায় যাতে কেউ আঘাত করতে না পারে সে বিষয়টি সম্পর্কে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এদিকে, মন্দিরের সেবায়েতদের নিয়ে বৈঠক করেছে পুলিশ।

পাশাপাশি মসজিদ ও মাজার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেছে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি মিডিয়া মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ গতকাল বিকালে মানবজমিনকে জানিয়েছেন, সিলেটে পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। একই সঙ্গে প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে বাড়তি মনিটরিং ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এদিকে, সিলেট নগরী ছাড়াও বিভিন্ন উপজেলায় উন্নয়য়ন কাজে চীন, থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা বসবাস করছেন। এর মধ্যে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে বসবাস করেন শতাধিক বিদেশি নাগরিক। শাহজালাল ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরি নির্মাণসহ কয়েকটি বড় বড় প্রকল্পে তারা কাজ করছেন। তাদের নিরাপত্তা নিয়ে পুলিশ আগে থেকেই তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলা পুলিশের এডিশনাল এসপি সুজ্ঞান চাকমা। তিনি জানিয়েছেন, আগে যে নিরাপত্তা ছিল এখন আরো বেশি নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। নিরাপত্তায় কোনো ফাঁক নেই বলে জানিয়েছেন তিনি।

আজ প্রতিবাদ কর্মসূচিঃ  দেশব্যাপী চলমান পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড ও জঙ্গি তৎপরতা, ইমাম, পুরোহিত, বৌদ্ধভিক্ষু, খ্রিস্টান ধর্মযাজক, মুক্তমনা লেখক, ভিন্নমতাবলম্বীদের হত্যা এবং গত শুক্রবার ঢাকার গুলশানে পরিকল্পিত জঙ্গি হামলায় বিদেশি নাগরিক ও পুলিশ কর্মকর্তা হত্যায় দেশবাসীকে এসব অপতৎপরতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানাতে আজ সোমবার বিকাল ৩টায় সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের আয়োজনে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এক প্রতিবাদ কর্মসূচি আহ্বান করা হয়েছে। সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের প্রধান পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা নিজামউদ্দিন লস্কর এক বিবৃতিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের নাট্য ও সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করার জন্য বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২ জুলাই ২০১৬

Related posts