September 19, 2018

সিলেটে ডিসি অফিসে সৃষ্ট ঘটনায় মামলা নয়, জিডি করেছে দুদক

16681967_1154098684688792_371694455937477087_n-480x330

সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে কর্মচারীকে আটক করতে গিয়ে সৃষ্ট অপ্রীতিকর ঘটনার মামলা হয়নি, তবে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। দুদক চেয়ারম্যানের অনুমতি সাপেক্ষে পরবর্তীতে মামলা করা হবে বলে এতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে নগর পুলিশের কোতোয়ালী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন দুদক সিলেটের আঞ্চলিক পরিচালক শিরিন পারভীন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জিডি’র বরাত দিয়ে ওসি বলেন, সিলেট জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে ঘুষের টাকাসহ আসামি ধরতে গেলে কর্মচারীদের হাতে আক্রান্ত হন তারা। এ সময় কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তাদের ভবনের নিচে নামিয়ে আনেন। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিত থাকলেও তাদের কোনো ভূমিকা ছিল না। যে কারণে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের হামলায় দুদকের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। দুদক চেয়ারম্যানের অনুমতি সাপেক্ষে পরে মামলা করা হবে বলেও জিডি’তে উল্লেখ করা হয়।

প্রসঙ্গত; বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে ‘ঘুষ’ গ্রহণের অভিযোগে সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের তৃতীয় তলার ৩০৭ নম্বর রুমে বাণিজ্য শাখার অফিস সহকারি আবদুল আজিজকে আটক করতে যান দুদক কর্মকর্তারা। এরপরেই তারা তোপের মুখে পড়েন। এসময় তার সহকর্মীদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে দুর্নীতি দমন কমিশন সিলেট অফিসের একদল কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যদের।

একপর্যায়ে জেলা প্রশাসনের কর্মচারীরা অভিযুক্ত আব্দুল আজিজকে ছিনিয়ে নিয়ে যান এবং তাদের অবরুদ্ধ করে রাখেন। ঘটনাটি নিষ্পত্তির জন্য তাৎক্ষণিক দুদক কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেন জেলা প্রশাসক।

এর আগে অভিযুক্ত কর্মচারী ভয়ে ‘অসুস্থ’ হয়ে পড়েন। বর্তমানে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া মিসবাহ উদ্দিন আহমদ নামের এক দুদক কর্মকর্তাও আহত হয়েছেন। কর্মচারীদের সাথে হাতহাতিকালে তার কপালে আঘাত লেগে ফেটে গেছে। তাকেও সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

পরে সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে পুলিশ প্রহরায় দুদক কর্মকর্তারা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বেরিয়ে আসেন। রাতে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।বিজ্ঞপ্তি

Related posts