October 20, 2018

সাবেক ইইএফ কর্তা যোগ দিলেন ‘টর’-এ

Tor's-new-executive-directo

একদিকে বিভিন্ন দেশের সরকার এখন নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে ‘প্রাইভেসি’-তে প্রবেশাধিকার চাইছে, অন্যদিকে প্রাইভেসি সমর্থকদের কাছে ডিজিটাল প্রাইভেসি রক্ষার জন্য প্রতিনিয়ত গুরুত্ব লাভ করছে টর। ঠিক এরকম একটি সময়েই যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক অধিকারবিষয়ক সংগঠন ‘ইলেকট্রনিক ফ্রন্টিয়ার ফাউন্ডেশন’ (ইএফএফ)-এর সাবেক কর্মকর্তাকে নিয়োগ দিয়েছে টর।

টর মূলত একটি ব্রাউজার। এই ব্রাউজারের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা নিজেদের ব্রাউজিং হিস্টোরি থেকে শুরু করে নিজের পরিচয় পর্যন্ত গোপন রাখতে পারেন। অন্য হিসেবে বলা যায়, ব্যবহারকারীদের ডেটা ও পরিচয় গোপন রেখে ইন্টারেনেটের জগতে ব্যবহারকারীর প্রাইভেসির বিষয়টি নিশ্চিত করে টর। এর নির্মাতা অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘টর প্রজেক্ট’।

নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত শারি স্টিল টর-এ নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট এনগ্যাজেট।

প্রায় এক দশক আগে ইইএফ-এ কর্মরত থাকাকালীন স্টিল নিশ্চিত করেছিলেন ‘টর’ যাতে নাগরিক অধিকারবিষয়ক ওই সংগঠনটির মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহ করতে পারে। এ ছাড়াও এইচটিটিপিএস-এর মতো অনলাইন নিরাপত্তা উদ্যোগ যাতে সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়তে পারে, সে বিষয়েও তিনি অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিলেন বলেই জানিয়েছে এনগ্যাজেট।

টর-এ স্টিল-এর নিয়োগ নিঃসন্দেহে সুসংবাদ বলেও মন্তব্য করেছে এনগ্যাজেট। এ বিষয়ে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইটটির যুক্তি হচ্ছে, প্রাইভেসি রক্ষায় টর-এ বর্তমানে কী উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন এবং কীভাবে ব্যবহারকারীদের ডেটা নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যেতে পারে, সে বিষয়টি এখন সবচেয়ে ভালোভাবে সামলাতে পারবেন স্টিল ।

নিজ নিয়োগ ও টর প্রসঙ্গে স্টিল এখনও তেমন কিছু না জানালেও, প্রারম্ভিক ব্লগপোস্টে তিনি এ বিষয়টি পরিষ্কার করে দিয়েছেন যে টর নিয়ে তার যথেষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে। ওই ব্লগ পোস্টে স্টিল লিখেছেন, “প্রকল্পটিকে আমাদের মূলধারায় নিয়ে যেতে এবং যারা ‘ডিপ ওয়েব’ সম্পর্কে ধারণা রাখেন না, তাদের জন্য সেবাটিকে সম্প্রসারিত করতে হবে।”

Related posts