November 13, 2018

সাবধান! আপনিও পরতে পারেন গোপন ক্যামেরার ফাঁদে!

hidden-camera-in-trial-room

দিনের পালা বদলে এসেছে সব কিছুর পরিবর্তন। প্রযুক্তির হাত ধরে এগিয়ে বদলেছে পুরোনো অভ্যাস। কেনাকাটায় যোগ হয়েছে দারুণ সব সুযোগ। অধিকাংশ শপিং সেন্টারে থাকছে ট্রায়াল রুম। পছন্দের পোশাকটি ঠিকঠিক গায়ের মাপে কিনা তা দোকান থেকেই দেখে নেয়া যাচ্ছে।

কিছু কুরুচিপূর্ণ মানুষ সেই প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সমাজে ঘটাচ্ছে নানা রকম নোংরামি। প্রয়োজনীয় ট্রায়াল রুম বা পাবলিক টয়লেটে সেট করছে গোপন ক্যামেরা। আর গোপনে ভিডিও করা হচ্ছে অভ্যন্তরিন দৃশ্য। এমন পরিস্থিতিতে আপনি বা আমি কতোটুকু নিরাপদ? তাই দরকার আগেই গোপন ক্যামেরা সনাক্ত করা। কিন্তু কীভাবে?

রুমে গোপন ক্যামেরার অস্তিত্ব নির্ণয় করা যায় খুব সহজে। কাজটি আপনিও করতে পারেন মাত্র এক মিনিটে। এজন্য ট্রায়াল রুমে (যেখানে কাপড় বদল করবেন) ঢুকে আপনার মোবাইল থেকে কাউকে কল দেয়ার চেষ্টা করুন। যদি কল করা যায় ও নেটওয়ার্ক ঠিক থাকে- তাহলে বুঝবেন গোপন ক্যামেরা নেই। আর যদি কল করা না যায় ও নেটওয়ার্ক হঠাৎ করে একদম ডাউন হয়ে যায়-তাহলে বুঝবেন সেখানে অবশ্যই গোপন ক্যামেরা রয়েছে।

গোপন ক্যামেরার সঙ্গে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল থাকে। সিগন্যাল ট্রান্সফার করার সময় এর ইন্টারফিয়ারেন্স হতে থাকে। যার জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক সেখানে ঠিকমতো কাজ করেনা।

এছাড়াও ট্রায়াল রুমের আয়নার পেছনেও লুকানো থাকতে পারে ক্যামেরা। কোনো অবস্থাতেই নিজের চেহারা দেখার সময় তা টের পাওয়া যায় না। তাই কাপড় বদলানোর আগে আঙ্গুল রাখুন আয়নার ওপর। যদি আপনার আঙ্গুলের মাথা প্রতিবিম্ব আঙ্গুলের মাথার সঙ্গে না লাগে অর্থাৎ মাঝে ফাঁকা থাকে তাহলে আয়না আসল।

আর যদি আঙ্গুলের মাথা প্রতিবিম্বের মাথার সঙ্গে লেগে যায়, বুঝতে হবে এটা দ্বিমুখী আয়না। যার পেছন পাশ থেকে খুব সহজেই আপনার ছবি বা ভিডিও করা সম্ভব। তাই সাবধান হওয়া জরুরি এখনই। তাহলে নিজেকে রক্ষা করা সম্ভব অজানা বিপদ থেকে।

Related posts