November 15, 2018

সানচাই নদী সেতু ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন!


জাহিদুর রহমান
ঝিনাইদহ থেকেঃ
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার টিকারী বাজারের সেতুটি ভেঙ্গে পড়েছে। ফলে আশপাশের ৫০ গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। জরুরি প্রয়োজনে মানুষ বাঁশের সাঁকো তৈরী করে চলাচল করছেন।

অভিযোগ উঠেছে নির্মাণ কাজে ঘাপলা ও অনিয়ম থাকার কারণে মাত্র ২২ বছরে সেতুটি ভেঙ্গে পড়েছে। তবে এ ঘটনায় বড় ধরনের কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, ২২ বছর আগে নির্মাণ করা সেতুটি হঠাৎ ধসে পড়ায় ঝিনাইদহের নারিকেলবাড়িয়া- টিকারী সড়কে চলাচলকারী কয়েক গ্রামের মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। গত সোমবার সকালে হঠাৎ করে সেতুটির মাঝের অংশ ধসে পড়ে। এ সময় সেতুর উপর থাকা দুইজন পথচারী নিচে পড়ে আহত হন। বর্তমানে সেতুর পাশে বাঁশের সাকো তৈরী করে পাঁয়ে হাটা মানুষগুলো নদী পারাপার হচ্ছেন। সকল প্রকার যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঝিনাইদহের নারিকেলবাড়িয়া-টিকারী সড়কের টিকারী বাজারের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সানচাই নদী। এই নদীর উপর বাজারের কাছেই ১৯৯৪ সালে নির্মিত হয় একটি সেতু। স্থানীয় এলজিইডি বিভাগ সেতুটি নির্মাণ করেন।

যে সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করে জিতড়, মিয়াকুন্ডু, কুশোবাড়িয়া, ধননঞ্জয়পুর, মুক্তারামপুর, মাড়নিব্দ, নারিকেলবাড়িয়া, টিকারী, দহখোলা, দিঘিরপাড়, লক্ষিপুর, মালি , ব্যাংশ, বেরুইলসহ পাশর্^বর্তী বেশ কিছু গ্রামের মানুষ চলাচল করেন। ঝিনাইদহ জেলা শহর হতে নারিকেলবাড়িয়া টিকারী হয়ে মাগুরা শহরে চলে গেছে এই রাস্তাটি। যে কারণে ভারি যানবাহনও চলাচল করে এই সেতুর উপর দিয়ে। কিন্তু সোমবার হঠাৎ করে সেতুর মাঝের অংশ ভেঙ্গে পড়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মাসুদ কামাল জানান, ৭ থেকে ৮ মাস আগে সেতুটির মাঝের অংশ কিছুটা নিচু অনুভব করেন তারা। এই অবস্থা দেখে স্থানীয় এলজিইডি অফিসে খবর দেন। খবর পেয়ে তারা আসেন এবং একটি সাইনবোর্ড দিয়ে যান ভাড়ি যানবাহন চলাচল না করার জন্য। সেইভাবে চলে আসছিল। ভাড়ি যানবাহন চলাচল করতো না। ভ্যান, নসিমন, করিমন, বাইসাইকেল চলাচল করতো। মাঝে মধ্যে দুই একটি গাংরগাড়ি চলাচল করতো। এই অবস্থায় সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে হঠাৎ করে সেতুটির মাঝের অংশ ধসে নিচে পড়ে যায়। এ সময় টিকারী গ্রামের সজিব হোসেন ও দুলাল মিয়া নামের দুই পথচারী সামান্য আহত হন। তারা ঘটনার সময় সেতুর উপর দিয়ে পার হচ্ছিলেন।

মাসুদ কামাল আরো জানান, এই সেতুটি অত্র এলাকার মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা। এখন সেতুটি ধসে পড়ায় মানুষের সকল প্রকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষ কোনো মালামাল পারাপার করতে পারছেন না। নৌকায় করে মালামাল এপার থেকে ওপারে নিতে হচ্ছে। আর পথচারীদের পারাপারের জন্য জনৈক সুবোধ কুমার ভাঙ্গা সেতুর পাশে বাঁশ দিয়ে একটি সাকো তৈরী করেছেন। পথচারীরা পার হচ্ছেন আর পারের খরচ হিসেবে সুবোধ কুমারের হাতে কিছু তুলে দিচ্ছেন।

সুবোধ কুমার জানান, ২২ বছর পূর্বে এই ঘাটে নৌকা চালিয়ে মানুষ পার করে তিনি টাকা উপার্জন করতেন। সেতু হওয়ায় সেটা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সেই সেতু ভেঙ্গে যাওয়ায় তিনি আবারো পারের পয়সা পাচ্ছেন। তবে এবার নৌকায় নন, বাঁশের সাঁকোয়।

এ ব্যাপারে এলজিইডি’র ঝিনাইদহ নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল মালেক জানান, ইতোমধ্যে তিনি সেতুটি দেখে এসেছেন। নকশা হয়ে গেছে। আশা করছেন যতদ্রুত সম্ভব ওই স্তানে নতুন সেতু হবে।

এতো অল্পদিনে পুরানো সেতুটি ভেঙ্গে পড়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যে ধারণ ক্ষমতা নিয়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল তার চেয়ে কয়েকগুন বেশি লোড নিয়ে গাড়ি চলাচল করেছে সেতুর উপর। মানুষের চাহিদার প্রয়োজনে এটা হয়েছে। আর তাই সেতুটি অল্পদিনে ভেঙ্গে পড়েছে।

ঝিনাইদহের আরও কিছু খবর………

পুরোহিত হত্যাঃ  ক্লু উদ্ধারের দাবী পুলিশের!

ঝিনাইদহে পুরোহিত হত্যার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করা হয়েছে বলে দাবী করেছেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ।

বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কোরাতিপাড়া গ্রামের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলীকে হত্যায় জড়িতদের শনাক্ত করা হয়েছে। সেই সাথে হত্যার মোটিভ এবং ক্লু উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে জড়িতদের নাম প্রকাশ করা যাচ্ছে না বলেও জানান তিনি। তবে তিনি দৃঢ়তার সাথে বলেন, অচিরেই তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।’

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের মহিষারভাগাড় বিলে আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলী ওরফে নন্দকে (৭০) গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। আনন্দ গোপাল সদর উপজেলার কোরতিপাড়া গ্রামের মৃত সত্য গোপালের ছেলে। এ হত্যাকাণ্ডের পর আইএস এর নামে দায় স্বীকার করা হয়।

বুধবার ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন জানান, এ ঘটনার সাথে আইএস এর কোন যোগসুত্র নেই। বাংলাদেশে আতংক ছড়াতেই আইএস এর নামে বিবৃতি দেওয়া হচ্ছে। আর ঘটনার দিন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এসএম মনিরুজ্জামান বলেছিলেন, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরের পুরোহিত হত্যার সাথে নিঃসন্দেহে জঙ্গি সংগঠন জড়িত।

মাথায় গুলি করে টাকা ছিনতাইঃ গ্রেফতার ১

ঝিনাইদহ শহরের পূবালী ব্যাংকের সিঁড়িতে মাথায় গুলি করে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় রুবেল আহমেদ (২৮) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ভোরে সদর উপজেলার বেতাই গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত রুবেল ঝিনাইদহের ব্যাপারীপাড়ার গোলাম রসুলের ছেলে।

ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান জানান, ২৯ মে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঝিনাইদহ শহরের হামদহ এলাকার রেজাউল ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার ফারুক হোসেন পূবালী ব্যাংকে নগদ ১০ লাখ আট হাজার টাকা ও সাড়ে চার লাখ টাকার একটি চেক জমা দিতে আসেন। তিনি সিঁড়ি দিয়ে ব্যাংকে ঢোকার সময় তিন / চারজন দুর্বৃত্ত তার মাথায় গুলি করে সঙ্গে থাকা টাকা ও চেক ছিনতাই করে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই ফিলিং স্টেশনের জিএম নারায়ণ চন্দ্র বিশ্বাস বাদী হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর অভিযানে নামে পুলিশ। অভিযানের একপর্যায়ে এ ছিনতাইয়ে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়।

পোল্ট্রি ফার্মে আগুন<<পুড়ে গেছে ৬ হাজার মুরগি!  

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নিজপুটিয়া গ্রামে একটি পোল্ট্রি ফার্মে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুড়ে মারা গেছে প্রায় ছয় হাজার মুরগি।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ভোরে ওই গ্রামের মিলনের পোল্ট্রি ফার্মে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

পোল্ট্রি ফামে মালিক সাইফুজ্জামান মিলন জানান, ঝিনাইদহের বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে বাড়িতে একটি পোল্ট্রি ফার্ম গড়ে তুলি। এ ফামে আয় দিয়ে তার পরিবার জীবিকা নির্বাহ করে আসছিল।

তিনি বলেন, শত্রুতাবশত রাতে তার পোল্ট্রি ফার্মে আগুন জ্বালিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। সেহরি শেষে তিনি দেখতে পান পোল্ট্রি ফার্মে আগুন জ্বলছে। এতে পোল্টি ফামে  ছোট-বড় ছয় হাজার মুরগি পুড়ে মারা গেছে। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ছয় লক্ষাধিক টাকা হবে বলে তিনি জানান।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ৯ মে ২০১৬

Related posts