September 23, 2018

সাদুল্যাপুরের মার্কেটগুলোতে বৈশাখী উৎসবে পদচারণ মুখর

M7
তোফায়েল হোসেন জাকির, গাইবান্ধা : বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ পালনে গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরের মার্কেটগুলোতে কেনাকাটায় ক্রেতাদের পদচারণ মুখর হয়ে উঠেছে।

বাংলা নতুন বছর ১৪২৫ সন শুরু হতে বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। বাংলা সনের এই বর্ষকে বরণ করে নিতে চলছে নানান প্রস্তুতি। উপজেলার মার্কেট গুলো থেকে শুরু করে ছোট-বড় বিপনিবিতান গুলোতে কেনাকাটায় ধুম লেগেছে। পরিবার পরিজনসহ নানা রঙের নতুন পোশাকে নিজেকে সাজাতে ভিড় বাড়ছে ক্রেতার। লাল, সাদা, নীলসহ বাহারি রঙে নিজেকে সাজাতে খুঁজে ফিরছেন পছন্দের সেই পোশাকটি।

জমকালো পাঞ্জাবি, দৃষ্টিনন্দন শাড়ি আর ছোটদের জন্য রয়েছে সাদা-লালের বাহারি জামাসহ বিভিন্ন ডিজাইনের দেশীয় পোশাক। নিজেদের পছন্দের শাড়ি, জামার সঙ্গে ম্যাচিং চুড়ি, মালা, দুল কিনতেও অনেকে আবার ভিড় করছেন গয়নার দোকানে।

পহেলা বৈশাখের উৎসবে ক্রেতারাও পোশাক কেনার ক্ষেত্রে প্রাধান্য দিচ্ছেন দেশীয় পোশাককেই। আর তাই এই উৎসবকে কেন্দ্র করে ফ্যাশন হাউজগুলোর ব্যস্ততাও একটু বেশি। উপজেলার খন্দকার মার্কেট, ইসমাইল হোসেন সুপার মার্কেটসহ আরও অনেক মার্কেটে সাজানো হয়েছে পহেলা বৈশাখের পোষাকে। সাদুল্যাপুরের হারুন ফ্যাশান হাউজের সত্বাধিকারী হারুন অর রশিদ জানান, ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবি এবং ফতুয়ায়ও রয়েছে বৈশাখের রং। রয়েছে সব বয়সী মানুষের জন্য স্বল্প বাজেটে বাহারি রংয়ের সব পোশাক। আর দামের ক্ষেত্রেও রয়েছে ভিন্নতা। নিম্নবিত্ত থেকে শুরু করে সব শ্রেণির মানুষের বাজেটের মধ্যেই পাওয়া যাচ্ছে বাহারি রংয়ের সব পোশাক।

একাধিক ফ্যাশন হাউজের উদ্যোক্তারা জানান, সাদুল্যাুপর উপজেলার বাড়তি আমেজ নিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করায় বাড়তি আয়োজন থাকে তাদের। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে ফ্যাশন হাউজগুলো লাল সাদার ছোঁয়ার নতুন পোশাক বাজারে নিয়ে এসেছে। এদিকে বৈশাখ উপলক্ষে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নববর্ষ ভাতা নামে বোনাস পাচ্ছেন। যে কারণে বৈশাখের কেনাকাটায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

Related posts