September 22, 2018

সাত খুনঃ নূর হোসেন ও র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাসহ ২৩ আসামীকে আদালতে

রফিকুল ইসলাম রফিক           
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত হত্যা মামলার স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে নয়টায় জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে প্রধান আসামী নূর হোসেন ও র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাসহ ২৩ আসামীর উপস্থিতিতে স্বাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শুরু হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে নয়টার মধ্যে সাত হত্যা মামলার প্রধান আসামী নূর হোসেন, র‌্যাব-১১র সাবেক অধিনায়ক লে.কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, কমান্ডার এম এম রানা ও মেজর আরিফ হোসেনসহ ২৩ আসামীকে আদালতে হাজির করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এস এম ওয়াজেদ আলী খোকন জানান,জবানবন্দী রেকর্ডকারী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এইচ ,এম শফিকুল ইসলাম এর স্বাক্ষ্য শেষে জেরা চলছে । পর্যায়ক্রমে সাধারন নাগরিক আব্দুল আউয়াল,আজাদ শেখ ও হাসানের স্বাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা করার কখা রয়েছে। ইতিমধ্যে ১২৭ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ২ বাদীসহ ৫৩ জনের স্বাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা সম্পন্ন হয়েছে

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার লামাপাড়া এলাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম সিনিয়র আইনজীবি চন্দন সরকারসহ ৭ জনকে অপহরণ করা হয়। এর তিন দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। সাত খুনের ঘটনায় নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও তার ৪ সহযোগী হত্যার ঘটনায় নজরুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় একটি এবং সিনিয়র আইনজীবী চন্দন সরকার ও তার গাড়ির চালক ইব্রাহিম হত্যার ঘটনায় তার জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে একই থানায় অপর একটি  মামলা দায়ের করেন।

দীর্ঘ এক বছর পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুনুর রশিদ মন্ডল ৩৫ জনকে আসামী করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেন। এই মামলায় ৩৫ জন আসামীর মধ্যে ২৩ জন গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছে। ১২ জন আসামী এখনো পলাতক রয়েছে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৪ মে ২০১৬

Related posts