November 17, 2018

‘সরকার বিদেশীদেরকে খুশি করতে দেশের সম্পদ নষ্ট করে খনি করতে চায়’


মোঃ মেহেদী হাসান উজ্জল,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ   দিনাজপুরের ফুলবাড়ী হোসেন কমিউনিটি সেন্টারে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা কমিটির এক বর্ধিত সভা অনুষ্টিত হয়। গতকাল বিকেল ৪টায় পশ্চিম গৌরীপাড়া হোসেন কমিউনিটি সেন্টারে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা কমিটির ফুলবাড়ী শাখার সদস্য সচিব  জয় প্রকাশ গুপ্ত এর  সভাপতিত্বে এক বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জাতীয় কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ। তিনি বলেন,বর্তমান সরকার দেশে কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্রুৎ কেন্দ্র সুন্দরবনে স্থাপন করে সুন্দরবনের পরিবেশকে ধ্বংস করছেন।

হাজারকোটি বছরের সুন্দরবনকে রক্ষা করতে হলে সুন্দরবন এলাকায় তাপবিদ্রুৎ কেন্দ্র স্থাপন বন্ধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, ২০০৬ সালে ফুলবাড়ীতে শান্তিপূর্ণভাবে আমরা সমাবেশ করছিলাম কিন্তু সরকারের বাহিনী গুলি চালিয়ে মানুষ হত্যা করে ভয়ভীতি দেখিয়ে মনে করেছিল ফুলবাড়ী কয়লাখনি করা হবে কিন্তু আমাদের হাতে কোন অস্ত্র নাই আমরা জনগণকে সাথে নিয়ে আমরা মোকাবেলা করছি এই এলাকার মানুষের যাতে ক্ষতি না হয়। এই এলাকায় বহুজাতিক কোম্পানী খনি করলে পরিবেশসহ সব কিছু ধ্বংস হয়ে যাবে। চীন এখন যে পরিমান কয়লা ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতো এখন তারা তা করতে চাচ্ছেনা, ভারত ৭৫ভাগ খনির কয়লা দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতো।

এখন তারা অনেক কয়লাখনি বন্ধ করে কার্যক্রম চালাচ্ছে। সেই কয়লা দিয়ে বাংলাদেশে বিভিন্ন এলাকায় কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র গড়তে চায় কিন্তু তা করলে দেশের মারাত্মক ক্ষতি সাধন হবে। সরকার দেশের জনগনের সাথে খোলামেলা পরামর্শের মাধ্যমে কি করতে চায় কি করবে তা কখনও বলেনা। আপনারা জানেন চট্রগ্রামের বাঁশখালিতে এস আলম খাস জমি লিজ নিয়ে সেখানে কলকারখানা গড়ার কথা বললেও পরবর্তিতে কয়লাখনি করার পরিকল্পনা করলে জনগন বাধা দিলে সেখানে সরকারের বাহিনী ও এস আলম এর বাহীনি উভয়ে নিরীহ জনগনের উপর গুলি চালায় এতে ৪জন নিহতসহ অনেকে আহত হয়। এ জন্য আপনাদেরকে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এ সরকার বিদেশীদেরকে খুশি করতে দেশের সম্পদ নষ্ট করে কয়লা খনি করতে চায়। আমরা এমন কাজ করতে দেবনা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্রুৎ বন্দর রক্ষা কমিটির ৬থানার সমন্বয়ক জাতীয় গনফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম বাবলু,কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও তেল গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা কমিটির দিনাজপুর জেলা শাখার আহবায়ক মোহাম্মদ আলতাব হোসাইন,সদস্য সচিব মোঃ রবিউল আউয়াল খোকা, ছাত্রনেতা সামিউল ইসলাম চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,পার্বতীপুর উপজেলার সিপিবির সদস্য মোঃ আজিজুল ইসলাম,বিরামপুর উপজেলার সিপিবি সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম,নবাবগঞ্জ উপজেলার প্রভাষক জাকির হোসেন,ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের ফুলবাড়ী শাখার সদস্য সঞ্জিত প্রসাদ জিতু ও কমল চক্রবতী  প্রমূখ।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৫ এপ্রিল ২০১৬

Related posts