November 17, 2018

সম্ভাবনা জাগিয়ে হারিয়ে গেছেন যেসব বলিউড তারকা

হারিয়ে গেছেন যেসব বলিউড তারকা

বলিউড। এখানে পা রেখে কেউ সাফল্যের মুকুট পরেছেন, আবার এখানে পা রেখে সাফল্যের ঝিলিক দেখিয়ে অনেকে হারিয়েও গেছেন।
বলিউডের এমন অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী রয়েছেন যাঁরা বলিউডে পা রেখেই সুপার হিট ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের।
কিন্তু তারপর আর তাঁদের সেই অর্থে খুঁজে পাওয়া যায়নি। মেইন স্ট্রিম থেকে সময়ের চোরাস্রোতে কখন যেন হারিয়ে গেছেন। সাফল্যের দোড়গোড়ায় আর কখনো দেখা যায়নি তাঁদের। সেই রকম কিছু তারকার খোঁজ-খবর নিয়ে এই প্রতিবেদন।
স্নেহা উল্লাল :
সালমান খানের বিপরীতে দাঁড়িয়ে ২০০৫ সালে এই অভিনেত্রী ‘লাকি : নো টাইম ফর লাভ’ ছবি দিয়ে ডেব্যু করেন। মোটের ওপর সলমানের ক্যারিশমায় ছবিটি সাফল্যের ঘরে পৌঁছায়। ওই ছবি মুক্তি পাওয়ার পর স্নেহা উল্লালের চেহারার সঙ্গে সালমানের সাবেক প্রেমিকা এবং বর্তমানে বচ্চন বাড়ির বউ ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনের চেহারার মিল রয়েছে বলেও দর্শক মহলে গুঞ্জন ওঠে। এরপর সালমান খানের ভাই সোহেল খানের সঙ্গে ‘আরিয়ান’ নামক একটি ছবিতে অভিনয় করেন স্নেহা। কিন্তু ‘আরিয়ান’ বক্স অফিসে সাফল্য পায়নি। এরপর থেকে স্নেহা উল্লালকে কার্যত বলিউডের মেইন স্ট্রিমে আর দেখা যায়নি।
জিয়া খান :
প্রথম ছবি ছিল অমিতাভ বচ্চনের সাথে। ২০০৭ সালে পরিচালক রাম গোপাল ভার্মার ‘নিঃশব্দ’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন জিয়া খান। অসম প্রেমের গল্প নিয়ে তৈরি এই এক ছবিতেই দর্শকদের প্রিয় হয়ে ওঠেন জিয়া। অনেকেই ভেবেছিলেন, জিয়া খান আগামী দিনে বলিউডে সুপারহিট নায়িকা হয়ে উঠবেন। কিন্তু জিয়া খানকে পরবর্তী সময়ে আর সেভাবে উঠে আসতে দেখা গেল না রুপালি পর্দায়। আত্মহত্যার মতো সিদ্ধান্ত তাঁকে সবার থেকে দূরে নিয়ে গেল।
গ্রেসি সিং :
অভিনয় জগত শুরু করেছিলেন ছোট পর্দার মধ্য দিয়ে। টিভি ধারাবাহিক ‘আমানত’-এ অভিনয় করে যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়েছিলেন গ্রেসি সিং। এর পরই বড় পর্দায়। ‘হাম আপকে দিল মে র‍্যাহতে হ্যায়’ এবং ‘হু তু তু’ ছবিতে ছোট চরিত্রে অভিনয় করেন গ্রেসি। ২০০১ সালে অভিনেতা আমির খানের বিপরীতে দাঁড়িয়ে ‘লগান’ ছবিতে গৌরীর চরিত্রে অভিনয় করে যথেষ্ট সুনাম ও পরিচিতি লাভ করে ফেলেন। এরপর ২০০৩ সালে রাজকুমার হিরানীর পরিচালনায় অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের বিপরীতে ‘মুন্না ভাই এমবিবিএস’ ছবিতেও দেখা যায় তাঁকে। একই বছর অজয় দেবগানের বিপরীতে ‘গঙ্গাজল’ ছবিতেও ছিলেন গ্রেসি। বলিউডে অনেকটা যেন ধীরে চলো নীতি নিয়ে এগিয়ে চলেছিলেন তিনি। কিন্তু একসময় হারিয়েই গেলেন গ্রেসি।
ভাগ্যশ্রী :
এক ছবিতেই দর্শকমহলে রীতিমতো সাড়া ফেলে দেন এই অভিনেত্রী। ভাগ্যশ্রী অভিনীত ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’ ছবিটি বহুদিন ধরে দর্শকদের মনে থাকবে। এটা প্রধান চরিত্রে সালমান খানেরও প্রথম ছবি। এই ছবিতে আশাতীত সাফল্যের পর ভাগ্যশ্রীর বিয়ে হয়ে যায়। আর বিয়ের পরই ভাগ্যশ্রী জানিয়ে দেন, তিনি তাঁর স্বামী হিমালয় দাশানি ছাড়া আর কারোর নায়িকা হবেন না। ফলে ভাগ্যশ্রীকে নিয়ে পরিচালকরা বেশ বিপদে পড়ে যান। তবে বিয়ের পর স্বামী হিমালয় দাশানির সঙ্গে ভাগ্যশ্রী বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করলেও তা বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে। এরপর তাঁকে আর সেভাবে পাওয়া যায়নি কোন ছবিতে।
শমিতা শেঠি :
বড় বোন শিল্পা শেঠি আবেদনময়ী ও সাড়াজাগানো নায়িকা হলেও শমিতা শেঠি কিন্তু সেভাবে সাড়া ফেলতে পারেননি। ২০০০ সালে যশরাজের পরিচালনায় ‘মোহব্বতে’ ছবিতে অভিনয় করে দর্শকদের নজর কাড়েন তিনি। তারপর থেকে ক্রমশ হারিয়ে যেতে থাকেন শমিতা। পরবর্তী সময়ে বেশ কয়েকটা আইটেম গান ছাড়া তাঁর দেখা মেলেনি। ফ্লপ নায়িকার তকমা নিয়েই বলিউড ছাড়েন তিনি।
গায়ত্রী জোশী :
শাহরুখ খানের বিপরীতে দাঁড়িয়ে ২০০৪ সালে পরিচালক আশুতোষ গোয়ারিকারের ‘স্বদেশ’ ছবিতে প্রথম অভিনয় করেন গায়ত্রী জোশী। বলিউডে পা রেখেই প্রথম ছবিতে যথেষ্ট সম্ভাবনার আলো দেখান তিনি। অথচ এখনো তাঁর ওই একটিই ছবি, এরপর আর কোনো ছবিতে পাওয়া যায়নি তাঁকে।
ভূমিকা চাওলা :
২০০৩ সালে অভিনেতা সালমান খানের বিপরীতে ‘তেরে নাম’ ছবিতে প্রথম অভিনয় করেন ভূমিকা চাওলা। ভারতের দক্ষিণী বেশ কিছু ছবিতে সফলতার সঙ্গে অভিনয় করার পরই বলিউডে পা রাখেন তিনি। ২০০৩ সালে সফল ছবিগুলোর মধ্যে অন্যতম ছবি ছিল এই ‘তেরে নাম’।  ২০০৪ সালে অভিষেক বচ্চনের বিপরীতের ‘রান’ ছবিতে দেখা যায় ভূমিকাকে। তার পরই তিনি ছিটকে পড়েন বলিউড থেকে।
রাহুল রায় :
১৯৯০ সালে মহেশ ভাটের প্রযোজনায় ‘আশিকী’ ছবিতে প্রথম অভিনয় করেন। এক ছবিতেই বাজার মাত করে দেন তিনি। ‘আশিকী’ সুপারহিট হলেও এরপর বলিউডে তেমন কোনো ছবিতে সাফল্য পাননি রাহুল।
আনু আগরওয়াল :
রাহুলের মতোই ‘আশিকী’ ছবি দিয়ে অভিষেক করেন আনু। সে সময়ে তুমুল জনপ্রিয় হলেও হারি যান আনু। এমনকি রাহুল-আনুকে সম্ভাবনাময় জুটি হিসেবে গণ্য করা হলেও তাঁরা দুজনেই আর কোনো ভালো ছবি উপহার দিতে পারেননি দর্শকদের।
নীল নীতিন মুকেশ :
বহুদিন পর ‘প্রেম রতন ধন পায়ো’ ছবিতে ফের দেখা গেছে নীল নীতিন মুকেশকে। প্রথম শ্রী রাঘবন পরিচালিত থ্রিলার ছবি ‘জনি গাদ্দার’-এ অভিনয় করেন নীল। প্রথম ছবিতে অভিনয়ের জন্য বেশ প্রশংসাও কুড়ান। অভিনয়ের জন্য ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কারও জিতে নেন। প্রথম অভিনয়েই অনেকে মনে করেছিলেন, বলিউডের মাটিতে যথেষ্ট সাফল্য পাবেন নীল। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে সেটা ঘটেনি। আর কোনো ছবি দিয়েই তিনি আলোচনায় আসতে পারেননি।

Related posts