November 18, 2018

‘সভাপতিকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গুজব মাত্র’

‘গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন’ করে সভা ডেকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ‘সভাপতিকে বহিষ্কারের সঙ্গে’ নিজেদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করেছেন কারণ দর্শানোর নোটিস পাওয়া সংগঠনের আট নেতা।

নোটিসের জবাবে নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলন করে এই দাবি করেন তারা।

গত ৬ ও ৮ ডিসেম্বরের যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভায় সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানকে ‘বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়ে গণমাধ্যমে প্রচারের’ ঘটনায় সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমানকে সাময়িক বহিষ্কারের পাশাপাশি ‘সভার আয়োজক হওয়ায়’ শনিবার কারণ দর্শানোর নোটিস জারি করে সংগঠনের এই আট নেতাকে এক সপ্তাহের মধ্যে জবাব দিতে বলেন দেন সভাপতি।

এরা হলেন- সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক নিজাম চৌধুরী ও আইরিন পারভিন, সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মহিউদ্দিন ও আবুল হাসিব মামুন, প্রচার সম্পাদক দুলাল মিয়া (এনাম), মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম ও উপ-প্রচার সম্পাদক তৈয়বুর রহমান টনি।

তবে বুধবার সন্ধ্যার সংবাদ সম্মেলনে আইরিন পারভিন ও হাজী এনাম উপস্থিত ছিলেন না।লিখিত বক্তব্যে নিজাম চৌধুরী বলেন, “সেক্রেটারির নোটিস পেয়ে ৬ ডিসেম্বরের কার্যকরী কমিটির সভায় আমরা উপস্থিত হই। ওই সভায় সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া দূরের কথা, এ বিষয়ে কোনো আলোচনাও হয়নি।”

সভাপতির অনুমতি নিয়ে ওই সভা ডাকা হয়েছে বলে সভার দুই/তিন সপ্তাহ আগে সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ তাদেরকে জানান বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন তিনি।“৬ ডিসেম্বর সভা শুরুর ১৪ ঘণ্টা আগেও সেক্রেটারি সাজ্জাদ আমাদেরকে নিশ্চিত করেন যে, সভাপতির সঙ্গে তার কথা হয়েছে। ওই সভা আয়োজনের সঙ্গে আমরা জড়িত বলে যে অভিযোগ করা হয়েছে, সেটি সর্বৈব মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।”

সভাপতি এবং তার স্ত্রীসহ চার নেতাকে বহিষ্কারের খবর দিয়ে সাজ্জাদের বিতরণ করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তির বিষয়েও তারা কিছুই জানেন না বলে তিনি দাবি করেন।“বহিষ্কার ও পাল্টা বহিষ্কারের যে সংবাদ পত্র-পত্রিকা ও সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়েছে- তার সঙ্গে আমাদের এই আট জনের কোনো প্রকার যোগসূত্র বা সম্পর্ক নেই। আমাদের স্বাক্ষরিত কোনো প্রেস বিজ্ঞপ্তি বা সভাপতির বহিষ্কার সম্পর্কিত কোনো সংবাদ প্রচার অথবা প্রকাশ করা হয়নি।”

নিজাম চৌধুরী জোর দিয়ে বলেন, “সভাপতিকে বহিষ্কারের কোনো এখতিয়ার কার্যকরী কমিটির কিংবা আমাদের নেই। আমরা সে ধরনের কোনো পদক্ষেপ গ্রহণের কথা কল্পনাও করতে পারি না।

“ভবিষ্যতে আমরা বর্তমান সভাপতি ড. সিদ্দিকের নেতৃত্বে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে আরো বেগবান ও শক্তিশালী করার সংকল্প ব্যক্ত করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ, আওয়ামী ওলামা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts