September 25, 2018

শিশু হত্যার দায়ে সৎ মায়ের ফাঁসি !

মহসিন মিলন,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ  সাত বছর বয়সী শিশু রাব্বী হত্যার দায়ে যশোরে বিলকিস বেগম নামে এক সৎ মায়ের বুধবার দুপুরে ফাঁসির রায় দিয়েছেন আদালত।

যশোরের স্পেশাল জেলা ও দায়রা জজ নিতাই চন্দ্র সাহা এ রায় ঘোষণা করেন।যশোর আদালত পুলিশের পরিদর্শক রেজাউল ইসলাম জানান, দন্ডপ্রাপ্ত বিলকিস বেগম যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বালিয়া গ্রামের আয়াতুল্লাহ খোমিনের দ্বিতীয় স্ত্রী। বর্তমানে তিনি পলাতক রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের ১৩ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বালিয়া গ্রামের আয়াতুল্লাহ খোমিনের দ্বিতীয় স্ত্রী বিলকিস বেগম তার সৎ ছেলে রাব্বীকে (০৭) ভাত খেতে বাড়িতে ডাকে। তবে এ সময় রাব্বী ভাত খেতে না চাইলেও জোর করে খাওয়ানোর সময় শিশু রাব্বী গলায় হাত দিয়ে চিৎকার করতে থাকে।

এ সময় তার দাদী তাহারুন নেসা সহ প্রতিবেশীরা ছুটে এসে দেখে রাব্বী ছটপট করছে।
স্থানীয়দের চাপের মুখে বিলকিস স্বীকার করে, তিনি ভাতের সঙ্গে ফুরাডান নামে একটি কীটনাশক মিশিয়ে দেয়।

এরপর শিশুকে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং পরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একইদিন রাত দু’টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাব্বী মারা যায়। পরে পুলিশ বিলকিসকে আটক করে।

এ ঘটনার পরদিন ১৪ অক্টোবর নিহতের চাচা মমিনুর রহমান বাদী হয়ে বিলকিসকে আসামি করে ঝিকরগাছা থানায় একটি মামলা করেন।

২০১০ সালের ৯ এপ্রিল ঝিকরগাছা থানার উপ পরিদর্শক দিলিপ কুমার বিশ্বাস বিলকিসকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। পরের বছর ৪ জুলাই চার্জ গঠন করা হয়। বিলকিস ২০১০ সালের ৮ সেপ্টেম্বরে আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হন।

দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণশেষে বিলকিস বেগম দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় যশোরের স্পেশাল জেলা ও দায়রা নিতাই চন্দ্র সাহা তাকে ফাঁসির রায় দেন এবং  ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/১১ মে ২০১৬

Related posts