September 20, 2018

লেবাননে নানা আয়োজনে দূতাবাসের বিজয় দিবস উদযাপন

5

বাবু সাহা, লেবাননঃ লেবাননে ২০শে ডিসেম্বর রবিবার বাংলাদেশ দূতাবাসে মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার এর সভাপতিত্বে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১১টায় দূতাবাসে শুরু হয় আলেচনা সভা।এর আগে ১৬ই ডিসেম্বর বুধবার বিজয় দিবস এর নির্ধারিত দিনে সকাল ১০টায় দূতাবাসের ছাদে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার।পতাকা উত্তোলনের সময় দূতাবাসের সুধীবৃন্দ সহ লেবাননের বিভিন্ন কমিউনিটির সদস্যগণ উপস্থিত ছিল।

দূতাবাসের কাউন্সেলর ও হেড অফ চ্যান্সেরী সিকদার মোঃ আশরাফুর রহমান এর সঞ্চালনায় তিনি নিজেই মহমান্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রেরিত বাণী সবাইকে পাঠ করে শোনান।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার বলেন, “মহান বিজয় দিবস জাতীয় জীবনে এক অনন্য গৌরবময় দিন। বিজয়ের এই মহান দিনে সেইসব অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গভীর শ্রদ্ধা জানাই; যারা দেশের স্বাধীনতা অর্জনে জীবন উৎসর্গ করেছেন।”

2

তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সশ্রদ্ধ চিত্তে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, “বাংলাদেশের ইতিহাসে মুক্তিযোদ্ধাদের অপরিসীম ত্যাগ ও বীরত্বগাঁথা চিরদিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। আজ কৃতজ্ঞ জাতি সশ্রদ্ধ বেদনায় স্মরণ করছে দেশের পরাধীনতার গ্লানি মোচনে প্রাণ উৎসর্গ করা বীর সন্তানদের। বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রামের বিজয় অর্জনের ইতিহাস শুধু ১৯৭১ সালে সীমাবদ্ধ নয়। ইস্পাতকঠিন ঐক্যে দৃঢ় জাতির দীর্ঘ সংগ্রাম আর ত্যাগের সুমহান ফসল এ বিজয়।”

তিনি বলেন, দেশ আজ ক্ষুধা, দারিদ্র নিরসনে এগিয়ে যাচ্ছে।দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জ্বালানী, নারীর ক্ষমতায়ন আজ সর্বক্ষেত্রে প্রশংসিত।ফলস্বরুপ বাংলাদেশ পেয়েছে বিভিন্ন স্বীকৃতি।আজ বাংলাদেশ ৬% এর বেশী প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীতে ২টি যুদ্ধ জাহাজ সহ ৩০০ জন বাংলাদেশী লেবাননের সীমানা পাহারা দিচ্ছে।বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার লক্ষ্যে একটি পরিকল্পনা গ্রহন করেছে।লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাস জনগণের অংশ হিসাবে কাজ করছে।তিনি সবার প্রতি বিজয়কে সমান ভাবে উপলব্ধি ও সমুন্নত রাখার আহব্বান জানান।

6

এর আগে ১৬ই ডিসেম্বর বুধবার বিজয় দিবস এর দিনে লেবাননের কারাগারে বন্দী প্রায় ১০০ জন বাংলাদেশী কর্মীর মাঝে হাইকমিশনার আবদুল মোতালেব সরকার স্বয়ং নিজ হাতে দুপুরের খাবার ও ঔষধ বিতরণ করেন।বন্দী বাংলাদেশী কর্মীরা রাষ্ট্রদূতকে কাছে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়।

আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটি, লেবানন এর সাবেক সভাপতি আলহাজ্জ্ব আবুল বাশার প্রধান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর মোল্লা, রুবেল আহম্মেদ, আওয়ামী তরুণ লীগের সভাপতি হামিদুর রহমান আল-আমিন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহেল মিয়া।আলোচনা সভায় বিএনপি লেবানন শাখার নেতৃবৃন্দ সহ লেবাননের বিভিন্ন অরাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিল।আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ ব্যতিত লেবাননের অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা দিতে না পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করে।

Related posts