September 23, 2018

র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই বনদস্যু নিহত

সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের উরুবাড়িয়া খালের কাছে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দস্যু মনির বাহিনীর প্রধানসহ দুজন নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন-বাহিনী প্রধান মনির খলিফা (৩২) ও তার সহযোগী নুর মোহম্মদ ওরফে ভোলা মামা।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল ফরিদুল আলম জানান, সোমবার ভোর রাতে বাগেরহাট জেলার মংলা থানাধীন সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের অন্তর্গত শ্যালা নদীর উরুবুনিয়া খালের অভিযান চালানো হয়।
এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দস্যুরা গুলি করতে থাকে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। উভয়পক্ষের মধ্যে প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে গুলি বর্ষণ চলে।
তিনি জানান, পরে বনের ভেতর তল্লাশি চালিয়ে দুটি মৃতদেহ এবং বিপুল পরিমাণ অস্ত্র, গুলি উদ্ধার করা হয়। এ সময় স্থানীয় জেলেরা গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ দুটি বনদস্যু মনির বাহিনীর প্রধান মো. মনির খলিফা ও তার সহযোগী নূর মোহাম্মদ ওরফে ভোলা মামার বলে সনাক্ত করেন।

উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে- ৫টি সিঙ্গেল ব্যারেল বন্দুক, ৭টি ওয়ান শ্যুটারগান, ৪টি কাটা রাইফেল, ১টি ডাবল ব্যারেল বন্দুক ও ১টি পয়েন্ট ২২ বোর বন্দুক, বন্দুকের ৩০০ রাউন্ড তাজা গুলি, ৩৩ রাউন্ড গুলির খোসা।
এ ছাড়া ৭টি ধারাল অস্ত্র, মোবাইল ফোন, সিমকার্ডসহ দস্যুদের ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয় বলে জানান র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা।
র‌্যাব-৮-এর উপঅধিনায়ক মেজর আদনান কবির জানান, মনির বাহিনী সুন্দবনের চাঁদপাই রেঞ্জের অন্তর্গত বেড়িরখাল, নন্দবালা খাল, হারবাড়িয়ার খাল, শ্যালাগাং, আরুবাডিয়া, আন্ধারমানিক এবং পশুর নদী সংলগ্ন বিভিন্ন খালে ডাকাতি, নিরীহ জেলেকে অপহরণ ও মাছ ধরার ট্রলারে লুটপাট ও মুক্তিপণ আদায় করে আসছিল।
তাদের বিরুদ্ধে বাগেরহাটের মংলা ও শরণখোলা থানায় দস্যুতা, জেলে অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায়ের একাধিক মামলা রয়েছে।

Related posts