November 16, 2018

রাষ্ট্রীয়ভাবে সন্ত্রাস, খুন-গুম চলছে – জেবেল রহমান গানি

রিপন হোসেন
ঢাকা থেকেঃ
২০ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা ও বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি বলেছেন, দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার উদ্দেশ্যেই বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে সন্ত্রাস, খুন-গুম চলছে। খবরের কাগজ খুললেই খুন, গুম, নারী নির্যাতন। এর সঙ্গে সরকারী দলের, সহযোগি ও সমর্থিত সংগঠনের নেতা-কর্মীরাই জড়িত। কোন কোন গুমের জন্য দেশের আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর দিকেও সন্দেহের আঙ্গুল উঠেছে। তিনি বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র নেই, মৌলিক অধিকার নেই, কারো কোনো অনুষ্ঠান করারও অধিকার নেই। শুধু যারা জোর করে ক্ষমতায় আছে, তারাই করতে পারবে।

জেবেল রহমান গানি আজ মঙ্গলবার সকালে নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে “আন্তর্জাতিক গুম দিবস উপলক্ষে” বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখছিলেন। নগর আহ্বায়ক সৈয়দ শাহজাহান সাজু‘র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব মোঃ নুরুল আমান চৌধুরী, সম্পাদক মোঃ কামাল ভুইয়া, নগর সদস্য সচিব মোঃ শহীদুননবী ডাবলু, যুগ্ম আহ্বায়ক আনছার রহমান শিকদার, বাসন্তি বরুয়া বাবলী, আবদুল্লাহ আল মাসুম, সোলায়মান সোহেল, আবদুল্লাহ আল-কাউছারী, জিল্লুর রহমান পলাশ প্রমুখ।

জেবেল রহমান গানি বলেছেন, দেশে এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। গণতান্ত্রহীন বাংলাদেশে এখন মানুষ চরম আতংকিত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। সরকার আইন-শৃংখরা বাহিনীকে প্রতিনিয়ত বিরোধী দল দমনে ব্যস্থ রাখায় সাধারণ মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, গুম-অপহরণ জঙ্গিবাদের মতোই একটি ভয়াবহ অপরাধ। সুতরাং যদি জঙ্গিবাদ দমন করতে চাই তাহলে এ ধরনের মানবতাবিরোধী অপরাধকেও আগে দমন করতে হবে। গুমকে আমরা সহ্য করব, কিন্তু জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বলবো এতে কোনো লাভ হবে না। সুতরাং বাংলাদেশে যদি আমরা আইনের শাসন, ন্যায়বিচার এবং মানবাধিকার রক্ষা করতে চাই তাহলে এর বিরুদ্ধেও সবাইকে সোচ্চার হতে হবে। আমরা জঙ্গিবাদকেও দমন করব, গুম-খুন অপহরণ এ জিনিসগুলো সম্পর্কেও আমাদের অত্যন্ত বলিষ্ঠভাবে প্রতিবাদ করতে হবে। তিনি বলেছেন, গুমের জন্য বিশেষ আইন তৈরি করতে হবে। সরকারকে এবং রাষ্ট্রকে নিশ্চিত করতে হবে যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যারা বেআইনি কাজ করছে তার প্রতিরোধ করবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যখন বেআইনিভাবে অপরাধীদের মতোই অপরাধ করে অপরাধ দমনের চেষ্টা করে, সে সমাজে কিন্তু অপরাধ বাড়ে, সে সমাজে অপরাধ কমে না।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ শাহজাহান সাজু বলেছেন, সরকার শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে রাজনৈতিক সংকট নিরশনের চেষ্টা করছে। যার ফলে গুম-খুন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং সমাজে অস্থিরতা বিরাজ করছে। সরকারের উচিত গণতন্ত্রের স্বার্থে রাজনীতির সকল দরজা উম্মুক্ত করে দেয়া। সরকারকে মনে রাখতে হবে বহুদলীয় রাজনীতি যদি না থাকে সমাজ ও রাষ্ট্রে অশুভ ও অগণতান্ত্রিক শক্তির উত্থান ঘটতে বাধ্য।

Related posts