November 16, 2018

রানা হত্যার ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রদান ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

Madaripur 15-04-18 (Human Chain Rana) Picture (9)মাদারীপুর প্রতিনিধি
মাদারীপুরে রানা হত্যার সঠিক ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রদান ও আসামীদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। রবিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই কর্মসূচী পালন করা হয়।
এর আগে রাজৈরের বাজিতপুর ইউনিয়নের সাতালিয়া গ্রাম থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন রানার পরিবার ও এলাকার কয়েকশ মানুষ। এরপর তাঁরা ব্যানার, ফ্যাস্টুন হাতে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন। মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি দেয়া হয়।
মাননবন্ধনে বক্তরা বলেন, রানার শ্বশুর ও তার কতিপয় লোকেরা মিলে পরিকল্পিত ভাবে রানাকে হত্যা করেন। এ ঘটনায় ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দিতে চিকিসক গরিমসি করছেন। আসামীরা পুলিশ ও চিকিৎসকদের হাত করে রানা হত্যা ঘটনাকে আত্মহত্যা বানানোর চেষ্টা চলছে। আমরা এ রানা হত্যার সঠিক ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রদান ও দ্রুত আসামীদের গ্রেফতারের দাবি জানাই।
মানববন্ধনে রানা বাবা আক্কাস মৃর্ধা বলেন, আমার ছেলেকে ওরা হত্যা করেছে। ওদের শিক্ষিত মেয়েকে বিয়ে করেছিলো আমার রানা। এটাই আমার ছেলের একমাত্র দোষ। কেন আমার ছেলেকে ওরা হত্যা করেছে। আমার ছেলের হত্যার সাথে যারা জড়িত ওদের বিচাই চাই।
মানববন্ধনে রানার মা হেনা বেগম বলেন, ‘আমার বড় ছেলে রানা। আমার কোল ওরা খালি কইরা দিছে। আমার ছেলের সাথে এই তল্লায় কোন শত্রুতা নাই। কেন আমার ছেলের সাথে ওরা এমন করলো? হ্যা আল্লাহ্ তুমি এর বিচার করো।’
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজৈর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) ইমতিয়াজ আহম্মেদ বলেন, এ ঘটনায় গত ৮ এপ্রিল রানা মা হেনা বেগম বাদী হয়ে রানা শ্বশুর জাহাঙ্গীর খোন্দকারকে প্রধান আসামী করে ৫ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেছেন। আমরা রানার স্ত্রী ও শ্বশুরীকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করেছি। বাকি আসামীরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন আমরা এখনো হাতে পাইনি। ওটা চিকিৎসকদের বিষয়। তারা প্রতিবেদন দিলে আমরা আমাদের মত তদন্ত করে ব্যবস্থা নিব।
ময়নাতদন্তের বিষয়ে মাদারীপুর সদর থানার আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ মুঠোফোনে বলেন, রানার ময়নাতদন্তের রির্পোট সম্পূর্ণ হয়েছে। যথাসময়ে তা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।
গত ৭ এপ্রিল রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের কোদালিয়া গ্রামে শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে গিয়ে রানা মৃধা (২৮) নামের এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়। পরে সেখান থেকে রানার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ পরিকল্পিতভাবে নির্যাতন করে রানাকে হত্যা করা হয়েছে। এদিকে রানার স্ত্রী মাফুজার দাবি, পারিবারিক কলহে আত্মহত্যা করেছে রানা।

Related posts