January 16, 2019

রাজনীতি এবং সাংবাদিকতা হাতে হাত ধরে চলে : ডা. দীপু মনি

44
এ কে আজাদ, চাঁদপুর : ‘রাজনীতি এবং সাংবাদিকতা হাতে হাত ধরে চলে। আমি যেমনি রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, একইভাবে সাংবাদিক পরিবারেরও সন্তান। সাংবাদিকতা জগতটা একান্ত আমার আপন জগত। এই ভুবনে আসলে আমার মনে হয় আমি যেনো আপনজনদের কাছে আসলাম। আজ সেই আপনজনদের এই মহামিলনে আসতে পারবো এটা আমার খুব দৃঢ় বিশ^াস ছিলো। আর আমার মনের খুব ইচ্ছা ছিলো বলেই শত ব্যস্ততার মাঝেও আল্লাহ আমাকে আমার এই শত ভাইদের মাঝে উপস্থিত হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। সেজন্যে মহান রাব্বুল আলামীনের শুকরিয়া আদায় করছি। পাশাপাশি সেই সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চাঁদপুর জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাংবাদিক ভাইরা যে স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে উপস্থিত রয়েছেন, তাঁদের প্রতিও অশেষ কৃতজ্ঞতা। চাঁদপুর জেলার সাংবাদিকদের কাছে এভাবেই নিজেকে উপস্থাপন করলেন সাংবাদিকদের একান্ত আপনজন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি। চাঁদপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগে চাঁদপুর জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপী এ সাংবাদিক সমাবেশের সমাপনী অনুষ্ঠানে ডাঃ দীপু মনি এমপি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। গতকাল ১ অক্টোবর সোমবার চাঁদপুর প্রেসক্লাব কমিউনিটি সেন্টারে এ সাংবাদিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

c

ডাঃ দীপু মনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা হলেন জাতির বিবেক। সে বিবেককে জাগ্রত করে একটু ভাবুন তো, অনেকে অনেক বড় বড় পদে থাকেন, কিন্তু ক’জন মানুষের স্বজন হতে পারেন, ক’জন মানুষের জন্যে, আপনাদের জন্যে কাজ করে থাকেন? এ দিকটি বিবেচনা করে বিবেক দিয়ে অবশ্যই আপনারা মূল্যায়ন করবেন। চাঁদপুরের সাংবাদিকতা সম্পর্কে তিনি বলেন, চাঁদপুরের সাংবাদিকতা জগত থেকেই তো অনেক বড় বড় সাংবাদিক হয়েছে। তাঁদের উত্তরসূরিই তো আপনারা। সে জন্যে সাংবাদিকতার এথিক্স ও মান যেনো বজায় থাকে সে অনুরোধ আমি আপনাদের প্রতি রাখবো। একজন পাঠক হিসেবে সংবাদপত্র এবং সাংবাদিকদের কাছ থেকে যে প্রত্যাশা থাকে সে প্রত্যাশার জায়গাটি যেনো প্রশ্নবিদ্ধ না হয় সে দাবিটাও আজ সাংবাদিকদের কাছে রাখবো।

a

দীপু মনি সাংবাদিক সমাজকে তাঁর একান্ত আপনজন উল্লেখ করে বলেন, এতগুলো ভাইয়ের মাঝে একটি মাত্র বোনের দাবি-আব্দার থাকাটা তো খুবই যৌক্তিক। আর সে দাবি নিয়েই বলছি, বিগত নির্বাচনে যেভাবে আপনাদের সহযোগিতা পেয়েছি, আসছে নির্বাচনেও সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি। আর এটা স্বাভাবিক যে, সম্পাদকদের উপর অনেক চাপ থাকে, চাপ আসে। কিন্তু আপনারা সত্যটা তুলে ধরবেন, সে সত্য যদি আমার বিপক্ষেও যায়। চাঁদপুর প্রেসক্লাবের উন্নয়ন এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন দাবির বিষয়ে তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করবেন বলে জানান। অতীতেও তিনি সাংবাদিকদের কল্যাণে ছিলেন, বর্তমানে আছেন, ভবিষ্যতেও থাকবেন বলে তিনি ্আশ^স্ত করেন। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় সাংবাদিক সমাবেশের উদ্বোধনী পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ উদ্বোধন করেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ। প্রধান আলোচক ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ওচমান গনি পাটওয়ারী আলোচনা রাখেন। এরপর দিনভর বিভিন্ন পর্ব এবং মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন পর্বে চাঁদপুর জেলা শহর ছাড়াও বিভিন্ন উপজেলার সাংবাদিকরা বক্তব্য রাখেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান ও পুলিশ সুপার মোঃ জিহাদুল কবির পিপিএম। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল। প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারীর সভাপ্রধানে এবং সাধারণ সম্পাদক মির্জা জাকিরের উপস্থাপনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরাম চৌধুরী, কাজী শাহাদাত, গোলাম কিবরিয়া জীবন, শাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, শরীফ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সোহেল রুশদী ও জিএম শাহীন। এ পর্বে প্রবন্ধ পাঠ করেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক কাজী শাহাদাত। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ প্রধান অতিথি ডাঃ দীপু মনি এমপি এবং অন্যান্য বিশেষ অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও ক্রেস্ট প্রদান করেন।

Related posts