November 19, 2018

রাখে আল্লাহ মারে কে? অল্পের জন্যে রক্ষা শাহজালালে

ঢাকাঃ অল্পের জন্যে ভয়াবহ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের স্পর্শকাতর এলাকা। সোমবার দুপুরে ‘ঢাকা-গোয়াংজু রুটে চলাচলকারী চায়না সাউদার্ন এয়ারলাইনসের একটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজকে রানওয়ের বে এলাকায় জোরে ধাক্কা দেয় তেলবাহী কার্গো।

এতে উড়োজাহাজটির জ্বালানি লাইন, ইলেকট্রিক পাইপ ও হাইড্রোলিক পাইপ ছিঁড়ে যায়। পরে বিমানে থাকা দেড় শতাধিক যাত্রীকে দ্রুত নামিয়ে একটি হোটেলে পাঠানো হয়।

এসময় উদ্ধার কাজে নিয়োজিত কর্মীরা দেখতে পান উড়োজাহাজের ট্যাংক ফেটে জ্বালানি তেল রানওয়ের একটা অংশে ছড়িয়ে পড়ছে।ওই এলাকা স্পর্শকাতর হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কেননা ওই এলাকায় তেলবাহী কার্গো জাহাজগুলো রাখা হয়। ফলে যেকোনো সময় ঘটতে পারতো বড় ধরনের দুর্ঘটনা। পুড়ে যেতে পারতো বিমানবন্দরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

সিভিল অ্যাভিয়েশনের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, উড়োজাহাজটির ফিরতি ফ্লাইট বাতিল করে মেরামতের জন্য বিমানের হ্যাঙারে নেয়া হয়েছে। ফিরতি ফ্লাইটের যাত্রীদের নির্ধারিত হোটেলে রাখা হয়েছে।

সুত্র জানায়, সোমবার চায়না সাউদার্ন এয়ারলাইনসের ৭৩৭ বোয়িং উড়োজাহাজ সকাল সোয়া ১১টার দিকে ১৫৮ জন যাত্রী নিয়ে শাহজালাল  বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বেল্ট ধীরে ধীরে ঘুরছিল বলে সুপারভাইজার এর গতি বাড়াতে গিয়ে অসাবধানতাবশত বেশি বাড়িয়ে ফেলেন। ফলে বেল্টটি এর ডান পাশে সরাসরি আঘাত করে।

সিভিল অ্যাভিয়েশনের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা ইফতেখার জাহান বলেন, এ বিয়য়ে তদন্ত হবে, দুর্ঘটনার কারণ জানতে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে। তবে এটিকে বড় ধরনের দুর্ঘটনা বলতে চান না তিনি।

বিষয়টির ব্যাপারে কথা বলতে পরিচালক শাহজালালকে একাধিকবার ফোন করেও যোগাযোগ করা সম্বব হয়নি। তবে অথরিটির জনসংযোগ

বিভাগের কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিংয়ের দুর্বলতার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। গিয়ার বদলানোর সময় বেল্টটি উড়োজাহাজের স্পর্শকাতর স্থানে আঘাত করে। তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

Related posts