November 16, 2018

যে সমস্যায় ভোগেন ফোন ফোন ব্যবহারকারীরা !

প্রযুক্তির যেমন ভালো দিক রয়েছে তেমন খারাপ দিকও রয়েছে। প্রযুক্তির সাথে সখ্য হওয়ার পর প্রযুক্তিকে আপনি মিস করতেই পারেন। দশজনের মধ্যে নয়জনের মধ্যেই ‘ফ্যান্টম ভাইব্রেশন সিন্ড্রোম’ দেখা যায়। যখন তাদের মোবাইল ফোন তাদের সাথে থাকে না তখনও তাদের মনে হয় তাদের মোবাইল ফোন মনে হয় তাদের পকেটে ভাইব্রেশন দিচ্ছে।

জর্জিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির দার্শনিক এবং সহকারি অধ্যাপক ড. রবার্ট রোসেনবার্গার বলেন, এই ফেনোমেনন হয় শারীরিক অভ্যাসের কারণে। মানুষ পেশী নড়াচড়া করার কারণে মনে হয় যেন ভাইব্রেশন হচ্ছে। আসলে এটি হেলুসিনেশন ছাড়া আর কিছুই নয়।’

কম্পিউটার ইন হিউম্যান বিহেভিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মানুষ যখন ফোন ব্যবহার করা শুরু করে তখন ফোনটি পকেটে রাখার কারণে ফোনটি তার শরীরের অংশের মতো হয়ে যায়। কেউ যখন চোখে গ্লাস পড়া শুরু করে তখন গ্লাসটিও তার শরীরের অংশ হয়ে যায়।

বিবিসির এক সাক্ষাৎকারে ড. রবার্ট রোসেনবার্গার বলেন, ‘একটি সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে আন্ডার গ্রাজুয়েট পর্যায়ে ৯০ শতাংশ মানুষ এই ফ্যান্টম ভাইব্রেশনে ভোগে।’

আমাদের টেক্সট বার্তা, ইমেইল নটিফিকেশন সহ কল আসলেও ভাইব্রেশন ব্যবহৃত হয়। যার কারণে এই ভাইব্রেশনের সাথে শরীরের একটি সখ্য গড়ে উঠেছে। দিন দিন যতো আমরা প্রযুক্তি নির্ভর হবো, এ ধরণের সমস্যাগুলো আমাদের বৃদ্ধি পাবে বলে মন্তব্য করেন সহকারি অধ্যাপক ড. রবার্ট রোসেনবার্গার।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts