September 19, 2018

যে কারণে অলিম্পিয়ানরা সোনার মেডেল কামড়ায়?

স্পোর্টস ডেস্কঃ দৃশ্যটা কিন্তু খুবই পরিচিত। এক দুই তিন ধাপে দাঁড়ানো প্রথম, দিত্বীয় আর তৃতীয় স্থান নেয়া খেলোয়াড়। এর মধ্যে প্রথম যে হয়, মানে সোঁনার মেডেল যারা গলায় ফটোসেশনের সময় হাস্যোজ্জ্বল মুখে মেডেল পুরে দাঁত দিয়ে আলতো করে একটা কামড় দেয়। কেন জানেন?

এর পেছনে রয়েছে লম্বা একটা ইতিহাস। মধ্যযুগের ইউরোপে যখন “ডুকাট” মানে সোনার মোহর চালু হয় তখন নানান রকম ধান্দাবাজি হত। মানে সোনার মোহরের বদলে সীসার পয়সার উপর সোনার হাল্কা প্রলেপ দিয়ে বানানো হতো নকল মোহর। আর সেটাএ মনই নিখুত ভাবে বানানো হত যে দেখে বোঝার কোন উপায় থাকতো না ওটা আসল সোনার মোহর নাকি নকল।

তাই বলে আবার সোনার মোহরতো আর স্যাকরার কাছে বারবার নিয়ে পরীক্ষা করানো যায় না। সেজন্যই খুব সহজ একটা বুদ্ধি বের করে সে সময়ের লোকজন। সেটা হল মোহর দাঁত দিয়ে কামড়ে দেখা। কোন খাদ না মেশালে, সোনা কিন্তু আদতে খুবই নরম ধাতু। এতটাই নরম যে খাঁটি সোনায় আলতো করে কামড় বসালেও তাতে দাঁতের দাগ ধরে যায়। ব্যাস হয়ে গেল। সোঁনার মোহর খাঁটি কি না সেটা পরখ করে দেখার সবচেয়ে আদি আর অকৃত্রিম বুদ্ধি।

তবে এখনকার অলিম্পিয়ানরা কিন্তু মেডেল খাঁটি সোনার কিনা সেটা পরখ করে দেখার জন্য কামড়ায় না। বরং এটা অলিম্পিকের একটা ঐতিহ্যের অংশ হয়ে গেছে। কে, কবে, কখন এর সূচনা করেছিল সেটাও আর কারো মনে নেই। সে যাই হোক, সোনার মেডেল কামড়ে ধরলে ছবিটা কিন্তু খাসা হয়। সেটা নিয়ে সোনা জিতনেওয়ালাদের কারো মনেই কোন সন্দেহই নেই।

Related posts