November 14, 2018

যেভাবে ওজন কমানো যাবে

hইদানীং দেখা যাচ্ছে নিজের ওজন নিয়ে সবাই বেশ সচেতন কিন্তু কিভাবে বা কোন উপায়ে ওজন কমানো যায় তার সঠিক পদ্ধতি সম্পর্কে অনেকে অবগত নয়।

জেনে নিন ওজন কমানোর কিছু পদ্ধতি:-

# হাঁটা: খাবারের পরে বিছানায় না গিয়ে অন্তত ১০ মিনিট হাঁটুন। পারলে সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করুন। সকালে উঠে হালকা কিছু খেয়ে যদি ৩০ মিনিট হাঁটা যায় তাহলে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

# টিভি দেখার সময় খাওয়া পরিহার: টিভি দেখার সময় খাবার খেলে আমরা স্বাভাবিকের তুলনায় ২৮৮ ক্যালোরি বেশি খাবার খাই। ওজন কমাতে হলে টিভি দেখার সময় খাওয়া যাবে না।

# সালাদে সতর্কতা: সালাদ তৈরির সময় উপকরণের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। যেমন: মাংস, মেয়োনিজ আর বাদাম দিয়ে সালাদ খেলে এক বাটি সালাদ থেকেই আমরা পাই ৫০০ ক্যালোরি। তবে এটাতে ভিনেগারের মিশ্রণ দেয়া যেতে পারে।

# ছোট থালা বেছে নেয়া: খাওয়ার জন্য ছোট থালা বেছে নিন। অন্তত ২০% খাবার কম খাওয়া হবে।

# চিপস খেলে গুনে গুনে: চিপস ওজন বাড়ার সহায়ক। যদি ওজন কমাতে চান তাহলে গুনে গুনে খেতে হবে চিপস। কারণ এক প্যাকেট চিপস এ ১২০০-এর উপরে ক্যালোরি থাকে। এ পরিমাণ চিপস খেলে আমরা ১৪০ ক্যালোরি গ্রহণ করি।

# যখন অতিথি: আমরা যখন কোনো বন্ধুর বাড়িতে অতিথি হয়ে যাই তখন সবাই অনুরোধ করে বেশি খেতে। সুস্থ থাকতে হলে এবং ওজন কমাতে এসব অনুরোধে বেশি খাওয়া বন্ধ করতে হবে।

# কম তেলযুক্ত খাবার: খাবার বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সিদ্ধ, পোচ অথবা বেক করা খাবার খান। অল্প তেলে রান্না করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। ১ চা চামচ কম তেলে রান্না করলে আমরা ১২৪ ক্যালোরি সেব করতে পারি।

# কোমল পানীয় বর্জন: বাইরের প্রতি বোতল কোমল পানীয় থেকে আমরা পাই ১৮০ ক্যালোরি। কোমল পানীয়তে ওজন বাড়ানো ছাড়াও অনেক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।

# চিনি পরিহার: আমরা যদি যে কোনো শরবত চিনি ছাড়া খেতে পারি। চিনি নিয়ম মতো খেলে ৪০০ ক্যালোরি সেভ করা যাবে।

# পরিমিত খাবার: যদি ওজন কমাতে প্রতিদিন না খেয়ে থাকা হয় তাহলে অসুস্থ হতে হবে তাই খাবার তালিকায় রাখুন ফল, সবজি আর প্রচুর পানি।

Related posts