September 21, 2018

যেকোনো সময় উপমহাদেশে ভয়ঙ্কর ভূমিকম্প!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ  ইকুয়েডর থেকে জাপান।একের পর এক ভূমিকম্প, আতঙ্কিত বিশ্ববাসী।প্রাকৃতিক এই বিপর্যয়ে মানুষকে এতোটা অসহায় হতে সম্প্রতি দেখা যায়নি।তবে ভারতীয় উপমহাদেশের জন্য আরও একটি আঁতকে ওঠার মতো খবর দিয়েছে ভূতাত্ত্বিকরা।তারা বলছেন, হিমালয় অঞ্চলের ভূস্তরে ঘটে চলেছে ব্যাপক পরিবর্তন, যার জেরে যে কোনও দিন আগের চেয়েও ভয়ঙ্কর কম্পনের শিকার হবে ভারত ও এর আশপাশ এলাকা।

ভূতাত্ত্বিকদের মতে, টেকটনিক প্লেটের খামখেয়ালি গতিবিধি কিন্তু ঘটে চলেছে হিমালয় অঞ্চল জুড়ে। এখানে ভারতীয় প্লেটটি ক্রমাগত তিনা ভূখণ্ডের ভিতর প্রবেশ করছে। উত্তরমুখী এই ক্রমাগত ধাক্কার জেরে গোটা এলাকার ভূস্তরে তৈরি হচ্ছে প্রবল অস্থিরতা। এর ফলে যে কোনও সময় ঘটে যেতে পারে বিশাল আকারের ভূমিকম্প, রিখটার স্কেলে যার মাত্রা দাঁড়াবে ৮-৯ পর্যন্ত। তবে কবে ও কোন সময় এই ভয়াবহ দুর্যোগ ঘটবে তা নিশ্চিত জানা যায়নি।

গত ২০১৫ সালে নেপালে তীব্র কম্পনের জেরে ভয়াবহ ধ্বংসলীলার সাক্ষী থেকেছে বিশ্ব। বিজ্ঞানীদের দাবি, ভারতে যে কম্পনের আশঙ্কা রয়েছে তীব্রতার বিচারে তা নেপালের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি হবে।

আমেরিকার ভূতাত্ত্বিক সমীক্ষা অনুসারে, বছরে একবার বিশ্বে মহাকম্পন (যা রিখটার স্কেলে যার মাত্রা অন্তত ৮) ঘটে। পৃথিবীর কোনও এক প্রান্তে নেমে আসে সেই মহাপ্রলয়। তবে এই নিয়মের ব্যতিক্রমও রয়েছে। ২০০৭ সালে যেমন উত্তর প্রশান্ত মহাসাগরের কুরিল দ্বীপপুঞ্জ, অস্ট্রেলিয়ার কাছে সলোমন দ্বীপপুঞ্জ, মধ্য পেরু এবং সুমাত্রায় পর পরস ৪টি মহাকম্পন ঘটে। ১৯২০, ১৯২৩, ১৯৪৬, ১৯৬০ এবং ১৯৯৫ সালে প্রতি বছর ৩টি মহাকম্পন দেখা দেয়। আবার ২০০২,২০০৮ ও ২০১৩ সালে সারা বছর বিশ্বের কোথাও মহাকম্পনের দেখা মেলেনি।

তবে ২০০০ সালের পর থেকে মহাভূমিকম্পের বাড়বাড়ন্ত দেখা যাচ্ছে। গত ১৫ বছরে মোট ২০টি এই তীব্রতার কম্পন ঘটেছে। পাশাপাশি ৭-৭.৯ মাত্রার কম্পন বছরে গড়ে ১৫টি ঘটেছে বলে ভূমিকম্প বিশারদদের দাবি।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/১৯ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts