September 25, 2018

যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন খালেদা জিয়া!

 

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টারঃ   বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিরসন ও সংকট উত্তরণে নতুন কর্মসূচির অংশ হিসেবেই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা যুক্তরাষ্ট্র সফরে যেতে চান। যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় তিনি তার পায়ের ব্যথার চিকিৎসাও নেবেন বলে জানা গেছে। তবে এখনও দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয়নি।

সূত্র জানায়, লন্ডনে চিকিৎসা নেওয়ার পাশাপাশি খালেদা জিয়া দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকের লক্ষ্য ছিল নির্দলীয়, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে চাপ দেওয়া। কিন্তু রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিরসন ও সংকট উত্তরণের বিষয়ে বৈঠক হলেও সৃষ্ট জটিলতার সমাধান হয়নি। যার কারণে খালেদা জিয়া দেশে ফেরার আগে লন্ডন থেকে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে।

সূত্র জানায়, নিউইয়র্ক স্টেট গভর্নর এনড্রিও কোমোর আমন্ত্রণে তার অতিথি হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছেন। সম্প্রতি লন্ডনে যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও স্বার্থসংশ্লিষ্ট এক উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিএনপির বৈঠককালে এ বিশেষ আমন্ত্রণ জানানো হয়। জানলেও নেতারা এ নিয়ে কোনো কথা বলছেন না। যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার বিষয় নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতারাও ভাবছেন। তারা বলেন, লন্ডনে থাকলেও খালেদা জিয়া দেশের বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত। এসব অভিযোগের মধ্য দিয়েই খালেদা জিয়া তার পায়ের ব্যথার চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন। সফরের দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে খুব শিগগিরই তিনি লন্ডন ত্যাগ করবেন বলে জানা যায়।

খালেদা জিয়া গত দুই মাস যাবৎ লন্ডনে আছেন। চিকিৎসার পাশাপাশি তিনি তার দলের রাজনৈতিক কর্মসূচি শেষ করেই দেশে ফিরবেন। তার দেশে ফেরা নিয়ে নিজ দল বিএনপি ছাড়াও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক উত্তাপ ছড়াচ্ছে। কেন তিনি দেশে আসছেন না তা নিয়েও রাজনৈতিক দলগুলোতে নানা আলোচনা হচ্ছে। ইতোমধ্যে খালেদা জিয়া তার দেশে ফেরার কর্মসূচি ৭ দফা পিছিয়েছেন। এখন আর দেশে ফেরার কথা শোনা যাচ্ছে না। কবে, কখন দেশে আসবেন দলের নেতারাও জানেন না। এমন সময়ই তিনি তার পায়ের চিকিৎসার জন্য লন্ডন থেকে যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন।

সূত্র জানায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির লন্ডন সফরের সময় তার একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিএনপির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে গোপন বৈঠকের বিষয়টি এখনও কারও পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়নি। এ নিয়ে দলের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তারা বলেন, এ বিষয়ে আমরা কিছুই জানি না। এমনকি মোদির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়েও তিনি কিছু জানেন না। একাধিক নেতা বলেন, ম্যাডাম লন্ডন গেছেন। চিকিৎসার জন্য গেলেও তিনি প্রবাসী বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তবে লন্ডনে তিনি করছেন তার সব কিছু ঢাকায় বসে জানা সম্্‌ভব নয়। লন্ডনের কর্মসূচি কি তাও জানতে পারি না।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাতে খালেদা জিয়া লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা ঢাকা, যুক্তরাষ্ট্র, ব্যাংকক, মালেয়েশিয়া থেকে লন্ডন পৌঁছেন। যেসব নেতা ইতোমধ্যে লন্ডন গেছেন তারা দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১০টার দিকে যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন খালেদা জিয়া। সভায় দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ যুক্তরাজ্য বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা অংশ নেন।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts