September 21, 2018

ময়লাযুক্ত ফোনটাকে যেভাবে পরিষ্কার করবেন?

106বাড়ির সবচাইতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন মানুষ হয়েও আপনি একটা জিনিস পরিষ্কার করতে ভুল যাচ্ছেন। আর তা হলো আপনার সাধের মোবাইল ফোন। যে ফোন ছাড়া আপনি চলতে পারেন না একটা দিনও, কেনার পর থেকে এক দিনও কি এই ফোনটা পরিষ্কার করেছেন? বেশীরভাগ মানুষই করেন না, ফলে ফোনে জমে থাকে ঘিনঘিনে জীবাণু আর আমরা ঘুণাক্ষরেও টের পাই না! জেনে নিন নিরাপদে ফোন থেকে এসব জীবাণু দূর করার উপায়।

একাধিক গবেষণায় দেখা যায় আপনার ফোনে টয়লেটের চাইতেও বেশি ব্যাকটেরিয়া থাকে। এর পরেও আমরা ফোন পরিষ্কার করি না কেউই। ফোন নিয়ে টয়লেট বা বাথরুমে যাতায়াত করাটা এর জন্য বেশি দায়ী। তবে এর পাশাপাশি ফোন নিয়মিত পরিষ্কার রাখাটাও জরুরী। এর জন্য আল্কহল-ফ্রি অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল স্প্রে এবং নরম একটা কাপড় ব্যবহার করতে পারেন। হাফিংটন পোস্ট থেকে জানা যায়, দিন কয়েকবার এই কাজটা করলে ফোন থেকে আসা এই ব্যাকটেরিয়া আপনাকে আক্রান্ত করার ঝুঁকি কমে যাবে। আপনি হয়তো দিনে কয়েকবার এই কাজটি করার সময় পাবেন না। যখনই সময় পান, তখনই ফোন পরিষ্কার করে নিন। তা হতে পারে দিনে বা সপ্তাহে একবার। অনুসরণ করতে পারেন এই পদ্ধতিটি-
যা যা লাগবে

–   চশমার কাঁচ মোছার টুকরো কাপড়
–   কটন বাড
–   ডিস্টিলড ওয়াটার
–   আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল/রাবিং স্পিরিট

বাসার সাধারণ গ্লাস ক্লিনার, অ্যামোনিয়া বা এমন রাসায়নিক ক্লিনারগুলো ব্যবহার না করাই ভালো। এগুলো আপনার ফোনে দাগ ফেলতে পারে বা এর ফিনিশ নষ্ট করে দিতে পারে।
যা করতে হবে

১) প্রথমে ফোন বন্ধ করে নিন।

২) ফোনটাকে কেস থেকে বের করে নিন।

৩) সম্ভব হলে ফোনের ব্যাটারি খুলে নিন।

৪) স্ক্রিনে যদি ফাটল থাকে তাহলে স্ক্রিনের ওপরের পাতলা পর্দাটা খুলবেন না। ফাটল না থাকলে খুলে নিতে পারেন।

৫) ৪০:৬০ অনুপাতে পানি ও স্পিরিট মিশিয়ে নিয়ে তাতে কটন বাড একটু ভিজিয়ে নিন। এরপর এটা দিয়ে ফোনের কী-প্যাড আলতো করে মুছে নিন। সাবধান থাকুন, ফোনের ভেতর যেন কোন তরল ঢুকে না যায়।

৬) ফোনের পাশে যদি ধাতব লাইনিং বা ট্রিম থাকে তাহলে সেটা পরিষ্কার করুন ডিস্টিলড ওয়াটারে ভেজানো কটন বাড দিয়ে, এখানে স্পিরিট ব্যবহার করবেন না।

৭) ফোনের ভেতরটা এবং ব্যাক কভার পরিষ্কার করার জন্য শুকনো কটন বাড ব্যবহার করুন। চার্জার, ডাটা কেবল এবং হেডফোনের পোর্ট পরিষ্কার করে নিন এভাবেই।

৮) ক্যামেরার লেন্স এবং ফ্ল্যাশ পরিষ্কার করার জন্য পানিতে ভেজানো কটন বাড ব্যবহার করুন, ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। পরিষ্কার করার পর দ্রুত কটন বাডের শুকনো প্রান্ত দিয়ে শুকিয়ে ফেলুন।

৯) এরপর চশমা পরিষ্কার করার কাপড়টা হালকা করে ডিস্টিলড ওয়াটারে ভিজিয়ে নিন। একেবারে ভিজিয়ে ফেলবেন না, হালকা করে ভেজাবেন। এরপর এটা দিয়ে ফোনের স্ক্রিনের ওপরে অংশটা মুছে নিন আলতো হাতে। ওপরের দিক থেকে নিচের দিকে এক টানে মুছবেন। এরপর ফোন শুকিয়ে নিন ও আবার ব্যাটার ও কভার লাগিয়ে নিন।

১০) ফোনের কেসটাকেও ধুলো ঝেড়ে স্পিরিটে ভেজানো কটন বাড দিয়ে পরিষ্কার করে নিন এবং শুকিয়ে নিয়ে ব্যবহার করুন।

জেনে রাখতে পারেন আরও কিছু টিপস

–   মাঝে মাঝে ফোনটাকে কেস থেকে বের করে পরিষ্কার করে নিন

–   পুরনো টুথব্রাশ ব্যবহার করে ফোনের খাঁজে জমে থাকা ময়লা সরিয়ে ফেলতে পারেন চটজলদি

–   কখনো ভেজা পেপার টাওয়েল বা টিস্যু ব্যবহার করবেন না

–   সরাসরি কোন ক্লিনার ফোনের ওপর স্প্রে করবেন না, একটা কাপড় ভিজিয়ে সেটা ব্যবহার করুন।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts