March 23, 2019

মেসিকে শিক্ষিকার হৃদয় ছোঁয়া চিঠি!

স্পোর্টস ডেস্কঃ  মেসিকে ফিরে আসার আকুল আবেদন জানাচ্ছে আর্জেন্টাইনরা। এরই মাঝে রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে উন্মোচিত হল মেসির মূর্তি।

দিয়েগো ম্যারাডোনা থেকে খোদ আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্টও নেমে এসেছেন আমজনতার কাতারে। গোটা আর্জেন্টিনার এখন একটাই আর্তি- ফিরে এসো মেসি।

আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের সিদ্ধান্তে মেসি অটল থাকতে পারবেন কিনা, সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে যে করুণ আকুতি নিয়ে তার দুয়ারে হাজির হয়েছেন ভক্তরা, তা উপেক্ষা করা খুব কঠিন।

হাজারও বিখ্যাত ভক্তের ভিড়ে আর্জেন্টিনার এক অখ্যাত স্কুলশিক্ষিকার দুই পাতার এক আবেগমথিত চিঠি রীতিমতো ঝড় তুলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

অনেকের বিশ্বাস, চিঠিটি পড়লে অবসর ভেঙে ফিরতেই হবে মেসিকে। ভালোবাসার এমন দাবি উপেক্ষা করা যায় না। অবসর ভেঙে ফেরার আকুতি জানিয়ে প্রাইমারি স্কুরের শিক্ষিকা ইয়োহানা যুকস যে হৃদয়ছোঁয়া চিঠি লিখেছেন মেসিকে তা সংক্ষেপে তুলে দেয়া হল।

‘লিওনেল মেসি, হয়তো কখনোই এই চিঠি আপনি পড়বেন না। কিন্তু তারপরও আমি লিখছি। শুধু একজন ফুটবল সমর্থক হিসেবে নয়, একজন আর্জেন্টাইন শিক্ষক হিসেবেও। নিজের বেছে নেয়া এক পেশাকে আমি ততটাই ভালোবাসি যতটা আপনি নিজের পেশাকে ভালোবাসেন।

আমাদের দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলায় আপনার অনন্য প্রতিভা নিয়ে লিখতে পারতাম। কিংবা বিশ্বজোড়া আপনার জনপ্রিয়তা ও আপনার জাদুকরী ফুটবল দেখার সৌভাগ্য নিয়ে লিখতে পারতাম। কিন্তু সেটা হতো একঘেয়ে পুনরাবৃত্তি। আমি বরং এমন একটি বিষয়ে আপনার সাহায্য চেয়ে লিখছি, যে ধরনের কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি আগে কখনও হননি আপনি।

আমি চাই, সেই শিশুদের আচরণ ও ব্যক্তিত্ব গঠনের কঠিন মিশনে আপনি আমাকে সাহায্য করুন যারা আপনাকে ফুটবল হিরো হিসেবে দেখে এবং অনুকরণীয় আদর্শ মনে করে। আমি যতই তাদের জন্য নিজেকে উজাড় করে দেই না কেন, আপনার প্রতি তাদের যে অবিশ্বাস্য অনুরাগ, আমি তা পাইনি কখনও।

এখন তারা দেখবে তাদের সবচেয়ে বড় আদর্শ হাল ছেড়ে দিয়েছে। হাতজোড় করে বলছি, সেই মানুষদের আপনি তৃপ্তি দেবেন না যারা জীবনযুদ্ধে পরাজিত এবং নিজেদের লক্ষ্য পূরণে ব্যর্থ। তারা কাজ না করে শুধু অন্যদের নিয়ে কথা বলে। কারণ এতে পয়সা লাগে না এবং শ্রম লাগে না।

আপনি একজন শিক্ষকের কাছ থেকে একথা শুনছেন, যে আর্জেন্টাইনদের এই নোংরা অভ্যাসের সঙ্গে পরিচিত। অন্যদের কাজকে আমরা সহজ মনে করি। ভাবি গোল করাটা বাড়ি বানানোর মতোই সহজ। কাউকে টেনে নামানোর নোংরা খেলা এটা। এখানে জয়কে সাফল্য আর হারকে ব্যর্থতা মনে করা হয়। এটা ভুল। কারণ ভুল ও ব্যর্থতা থেকেই মানুষ শেখে।

দয়া করে হাল ছাড়বেন না। আমার ছাত্রদের ভাবতে বাধ্য করবেন না যে, এই দেশে জয় ও প্রথম হওয়াই সব কিছু। তারা যেন এটা না ভাবে, নিজের জীবনে যতই সফল হন, অন্যদের সুখী করতে পারেননি আপনি।

এত বাধা পেরিয়ে, এত অল্প বয়স থেকে লড়াই করে এই অবস্থানে এসে কিছু নির্বোধের কথায় হাল ছেড়ে দিতে পারেন না আপনি। দয়া করে আর্জেন্টিনার জার্সি তুলে রাখবেন না। কারণ এই জার্সি গায়ে আমাদের সবার প্রধিনিধিত্ব করেন আপনি। মেসি আমাদের একজন- এই স্বর্গীয় অনুভূতির জন্য আমাদের সবার পদক ও ট্রফির প্রয়োজন নেই। দয়া করে আমার ছাত্রদের এমন ভুল বার্তা দেবেন না যে, দ্বিতীয় হওয়া মানে হার।

আমার ছাত্রদের উপলব্ধি করতে হবে যে, সত্যিকারের নায়ক তারাই, যারা অন্যদের মুখে হাসি ফোটাতে নিজেদের সেরাটা দেয়। বারবার ব্যর্থ হওয়ার পরও যারা হাল ছাড়ে না, একদিন সবচেয়ে বড় জয় তাদেরই হয়। সবাই বল নিয়ে কথা বলছে। কিন্তু আমি আপনার হৃদয়ের শক্তিতে আস্থা রাখছি।’

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ৩০ জুন ২০১৬

Related posts