November 18, 2018

মেঘনার উত্তাল ঢেউয়ে শহরক্ষা বাঁধের ব্যাপক ধস!


এ কে আজাদ,
চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ
চাঁদপুরে পদ্মা-মেঘনা ও ডাকাতিয়ার ত্রিনদীর মোহনায় হঠাৎ সৃষ্ট হওয়া জলোচ্ছাসে উত্তাল মেঘনার ঢেউয়ে শহরক্ষা বাঁধের নতুনবাজার-পুরাণবাজার অংশে ব্যপক ভাঙণ দেখা দিয়েছে। ২১ আগস্ট বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া জলোচ্ছাসে ১০ থেকে ১৫ ফুট উচ্চতার ঢেউয়ে এই ভাঙণ দেখা দেয়। এতে দুই স্থানের ১শ’ ১৩ মিটার এলাকার ব্লক ধস এবং ১৫টি বসতঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সোমবার (২২ আগস্ট) সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখানো ভাঙনস্থানে কোনো প্রকার কাজ শুরু হয়নি।

তবে ভাঙণ স্থান পরিদর্শন করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড কমিল্লা অ লের চীপ ইঞ্জিনিয়র মোসাদ্দেক হোসেন। চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে এই জলোচ্ছাসে শহর রক্ষা বাঁধের নতুন বাজার স্থানে ৬৮ মিটার ও পুরাণবাজার স্থানে ৪৫ মিটার এলাকার সিসি ব্লক ধসে গেছে। এদিন সকালে মেনুয়ালি সার্বে করে জানা গেছে নদী তীরে ২ থেকে প্রায় ৭মিটার ঢেবে গেছে। আজ বিকেলে কুমিল্লা থেকে উচ্চতর একটি প্রতিনিধি দল এসে ডিজিটাল সার্বে করার পরে ভাঙণ স্থানে কাজ শুরু করা হবে। এই দপ্তরের এক কর্মকর্তা জানান, বর্তমানে বড়স্টেশন মোলহেড এলাকা থেকে মেঘনার ৩শ’ গজ দূরে পানির গভিরতা ১শ’ ৬০ ফুট এবং ত্রিনদীর মোহায় গভিরতা প্রায় ২শ’ফুট। তিনি আরো জানান, যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় পানি উন্নয়নবোর্ডের কাছে ২০ হাজার জিও ভ্যাগ ( খলি ভ্যাগ) স্টকে রয়েছে।

সরে জমিনে ঘুরে দেখা যায়, শহর রক্ষা বাঁধের পুরাণবাজার দুধ হাটা বস্তির আফিল বেপারী, রোকন হাওলাদার, তগদির বেপারী, ফরহাদ, মানিক, খালেক, ছোবাহান, জহির, ফয়সাল, সোহেলসহ বেশ কয়েক জনের ১০টি বসতঘর ক্ষতিগ্রস্থ এবং মদিনা মসজিদ ট্রলার ঘাটের সুমন ইলেক্টনিক্স নামের ১টি দোকান নদীতে বিলীন ও আরো ৩টি দোকান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ সায়লা বেগম ও আফিল বেপারী জানান, প্রতি বছর ২ থেকে ৩ বার তারা মেঘনার ভাঙনের শিকার হয়। তাদের দাবি নদীতীরে স্থায়ীবাবে বাঁদ দিয়ে ব্যবসায়ীক এলাকা তথা চাঁদপুরকে রক্ষা করা হোক।

এছাড়া নতুনবাজার প্রান্তের বড়স্টেশন মোহনার বেশ কয়েকটি স্থানের ৬৮ মিটার জায়গার সিসি ব্লব ধসে গেছে এবং পর্যটকদের বসার পাকা বে ভেঙ্গে গেছে। তবে মোলহেড এলাকায় লাল নিশান উড়িয়ে বিপদ চিহ্ন দেখানো হলোও সেখানে পর্যটকদের সরব উপস্থিতি দেখা গেছে।
উল্লেখ্যা গত ২১ আগস্ট রোববার বিকেল ৩টা থেকে রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত মোহনায় হঠাৎ সৃষ্ট হওয়া জলোচ্ছাসে উত্তাল ঢেউয়ে শহরক্ষা বাঁধের নতুনবাজার-পুরাণবাজার অংশে ব্যপক ভাঙণ দেখা দিয়েছে।

১০ থেকে ১৫ ফুট উচ্চতার একেকটি ঢেউ নদী তীরে হামলে পড়ে ব্যপক ক্ষতি সাধন করে। খবর পেয়ে ওই রাতেই জেলা প্রশাসক আব্দুস সবুর মন্ডল, চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী নিজামুল হক ভূঁইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলাল, পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নিজামুল হক ভূঁইয়া, নির্বাহী প্রকৌশলী আতাউর রহমানসহ সংশ্লিষ্টরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts