November 17, 2018

মৃত গাছে ফুল ফোটানোর চেষ্টা জেলা ছাত্রদলের

71

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ   নারায়ণগঞ্জ জেলায় যখন বিএনপির রাজনীতি করার মত সক্রিয় কেউ নেই, যেখানে মিছিল মিটিংয়ে নেতাকর্মী খুঁজে পাওয়া দুস্কর, রাজপথে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়া, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নামে শ্লোগান দেয়ার মত দুঃসাহসী কর্মী খুজে পাওয়া নেহাতই অনর্থক অভিযান সেখানে মৃত গাছে ফুল ফোটানোর মত বৃথা চেষ্টা করে নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করার পরিবর্তে তাদের মনোবল ভেঙ্গে দিচ্ছে জেলা ছাত্রদলের শীর্ষ নেতারা এমন অভিযোগ অনেক তৃণমূল নেতাকর্মীদের।

জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা ইতোমধ্যে আশাহত হয়ে বর্তমান নেতৃত্বের অধীনে যেকোন কর্মসূচী পালন করা থেকে নিজেদের বিরত রাখছে। নেতারা দীর্ঘদিন তাদের দলীয় পরিচয় দেয়ার নাম করে তাদের কাছ থেকে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করে বর্তমানে তাদেরকে নিয়ে কমিটির নামে নগ্ন খেলায় মেতে উঠেছে বলে অভিযোগ ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের। সর্বশেষ গত দুই মাস ধরে চূড়ান্তভাবে কমিটি দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীদের একের পর এক দিন তারিখ দিচ্ছে শীর্ষ দুজন আহবায়ক। একেবারে নিশ্চিত করে তারিখ ও সময় দিলেও কমিটি অধরাই রাখছেন তারা। নেতাকর্মীরা দলের এমন অবস্থায় দলীয় পরিচয় পাওয়ার প্রত্যাশায় রাজপথে ঝুকি নিতে রাজি হলেও দুজন আহবায়ক তাদের মনোবল ভেঙ্গে দিচ্ছে।

জেলা ছাত্রদলের আওতাধীন কয়েকটি ইউনিটের নেতারা অভিযোগ করে বলেন, আমরা তো বলছিনা যে কমিটি দিতেই হবে, তারাই আমাদেরকে বলেছে কমিটি দিয়ে দিবে। এই কমিটি দেয়ার জন্য তারা একের পর এক প্রতিশ্রুতিও দিচ্ছেন তারা কিন্তু কমিটি দিচ্ছেন না। তারা কি চাচ্ছেন তাও বুঝতে পারছিনা।

জেলা ছাত্রদলের এই দুজন আহবায়ক কমিটি দিতে পারবেন কিনা তা নিয়েও আমাদের সন্দেহ হচ্ছে এখন।
তারা বলেন, আসলে এদের কমিটি দেয়ার সময় পার হয়ে গেছে, এখন হয়তো এসব বলে আমাদেরকে দিয়ে আবারো রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে তারা। যদি কমিটি তারা দিতে না পারেন তাহলে আমাদেরকে কেন ঘুরাচ্ছেন। আমাদেরকে বলে দিলেইতো হয় যে তারা কমিটি দেয়ার এখতিয়ার হারিয়েছে।
জেলা ছাত্রদলের একটি বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, কমিটি গঠন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। কমিটির সব কিছুই সম্পন্ন কিন্তু তবুও আহবায়কের বিশেষ কোন কারনে হয়তো তিনি কমিটি ঘোষণা করছেন না। এখানে তার স্বদিচ্ছাও একটি বিষয়। কমিটি ঘোষণার স্বদিচ্ছা থাকলে তিনি দিয়ে দিতে পারেন।

ফতুল্লা থানার একজন ছাত্রনেতা জানান, আমাদেরকে দুই বছর ধরে কমিটি দিবে, দিচ্ছে করে পার করে দিয়েছে। তবুও দিচ্ছেনা। সর্বশেষ আমাদেরকে কমিটি দেয়ার জন্য নতুন বছরকে চূড়ান্ত করেছে আহবায়করা তবুও দিচ্ছেনা। দেখা যায় নতুন বছরতো শেষ হয়নি এখনো। যেকোনো সময় কমিটি দিয়ে দিবে হয়তো।

রুপগঞ্জ থানা ছাত্রদলের এক নেতা জানান, কমিটি দেয়ার ক্ষমতা হারিয়েছে বর্তমান জেলার নেতারা। কারন দুই বছরে তারা যখন একটি ইউনিট কমিটিও করতে পারেনি তখন আগামীতেও আর পারবেনা। নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসে এরা সবচেয়ে ব্যর্থ। ছাত্রদলের সবচেয়ে ব্যর্থ জেলা কমিটি হচ্ছে নারায়ানগঞ্জ ইউনিট।

এদিকে জেলা ছাত্রদলের আরেকটি সুত্র জানিয়েছে জেলা ছাত্রদলের রেজা রিপন ও রনি গ্রুপের কারণেই জেলার কোন ইউনিট কমিটি গঠন করতে পারছেনা তারা। যুগ্ম আহবায়ক ফাতেহ মোঃ রেজা রিপন ও মশিউর রহমান রনিও জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের নিয়ে পরবর্তী জেলা ছাত্রদলের কমিটির প্রত্যাশায় দলীয় কর্মসূচী সক্রিয়ভাবে পালন করার চেষ্টা করছেন।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts