November 13, 2018

‘মুস্তাফিজের নাম উঠতেই ইডেনে চিৎকার’

স্পোর্টস ডেস্কঃ  মাহফুজুর রহমান, গ্রামীণফোনের চাকুরিজীবী। পরিচয়টা তার এখানেই শেষ নয়! বাংলাদেশের তরুণ পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের বড় ভাই মাহফুজুর রহমান। আইপিএল মাতানো মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে দেখা করতে গত ২০ মে কলকাতায় গিয়েছিলেন মাহফুজুর রহমান। ছোট ভাইয়ের একাকীত্ব কাটাতে মাহফুজুর রহমানের সঙ্গী ছিলেন তার ভায়রা, বন্ধু ও এলাকার তিন-চারজন।

তারা সবাই ইডেনে মুস্তাফিজুর রহমানের সানরাইজার্স হায়দরাবাদের শেষ ম্যাচ দেখেছিলেন। মঙ্গলবার দেশে ফিরে মাহফুজুর রহমান জানালেন ইডেনের সেই ম্যাচের অভিজ্ঞতা, ‘মুস্তাফিজ যখন বোলিংয়ে আসল তখন বড় স্কিনে ওর নাম দেখে সবাই চিৎকার করে উঠল। আমরাও যোগ দিলাম। আমাদের সঙ্গে টাইগার শোয়েব (শোয়েব আলী) ছিল। বুঝে গেলাম এখানে মুস্তাফিজের অনেক ভক্ত আছে যারা ওকে অনেক পছন্দ করে। ওর প্রথম বোলিংয়ের সময় পুরো স্টেডিয়াম চিৎকার-চেঁচামেচি করছিল। মনে হচ্ছিল খেলাটা ভারতে নয়, বাংলাদেশে হচ্ছে!’

ইডেন গার্ডেনের অধিকাংশ দর্শকই কলকাতার। এপার বাংলার বড় তারকা বলেই হয়তো মুস্তাফিজকে বরণ করতে ভুল করেনি ইডেন! বিদেশের মাটিতে ছোট ভাইয়ের বোলিংয়ের প্রশংসাও শুনেছেন মাহফুজুর রহমান। দুই-একবার বলতেও শুনেছেন, ‘এই তো মুস্তাফিজ চলে এল। এখন তো শেষ কলকাতা!’

বড় ভাই যাবেন সেটা আগে থেকেই জানতেন মুস্তাফিজ। তাদের মা মাহমুদা খাতুন চেয়েছিলেন বড় ছেলের সঙ্গে মুস্তাফিজের পছন্দের খাবার রান্না করে দেবেন। কিন্তু ওপার থেকে মুস্তাফিজ মানা করেন। জানিয়ে দেন, ‘কিছুদিন পরই তো দেশে চলে আসছি। আর এখানে (হোটেল) বাইরের খাবার নিয়ে আসা যায় না।’

মাহফুজুর রহমান টিম হোটেলে হায়দরাবাদের কোচিং স্টাফদের থেকে মুস্তাফিজের প্রশংসা শুনেছেন। সবাই বলেছে, ‘তোমার ভাই অনেক দূর যাবে। অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটার। আমাদের হয়ে কী অসাধারণ খেলছে ও। সত্যিই বড় সম্পদ তোমাদের।’

টম মুডি ও ডেভিড ওয়ার্নারকে না পেলেও অন্যান্য কোচিং স্টাফ ও ক্রিকেটারদের সঙ্গে মুস্তাফিজ বড় ভাইকে পরিচয় করিয়ে দেন। মাহফুজুর রহমান জানালেন হায়দরাবাদের ‘চোখের মণি’ মুস্তাফিজ। টিম ম্যানেজম্যান্ট, কোচিং স্টাফ ও সতীর্থরা মুস্তাফিজকে যেমন সম্মান করেন ঠিক তেমনই আদর করেন।

সাসেক্সে যাওয়ার বিষয়ে মুস্তাফিজ কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন? জানতে চাইলে মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘মুস্তাফিজের যাওয়ার আগ্রহ আছে। ও নিজেও চাইছে ওখানে গিয়ে আরো ভালো কিছু শিখতে। কিন্তু ওর গোড়ালিতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে মনে হলো। দেশে ফিরে ফিজিওর সঙ্গে কথা বলবে। আসলে ও ওখানে গিয়ে ভিন্ন কিছু শিখতে চাচ্ছে। কিন্তু নিজের ফিটনেসের দিকটি সবার আগে দেখছে। যদি ফিজিও জানায় যে বিরতি দিয়ে খেললে ভবিষ্যতে কোনো সমস্যা হবে না তাহলে হয়তো যেতেও পারে। এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি মুস্তাফিজ। দেশে ফিরে বিশ্রাম নিয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা করেই হয়তো ইংল্যান্ডে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিবে।’

বুধবার আইপিএলে এলিমিনেটর ম্যাচে মুস্তাফিজুর রহমানদের হায়দরাবাদের প্রতিপক্ষ সাকিব আল হাসানদের কলকাতা নাইট রাইডার্স। দুই দলের যারা হারবে তারাই আইপিএল থেকে ছিটকে যাবে। ১৪ ম্যাচে ১৬ উইকেট পাওয়া মুস্তাফিজ আবারও জ্বলে উঠবে সেই অপেক্ষায় মুস্তাফিজ-ভক্তরা।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৪ মে ২০১৬

Related posts