September 19, 2018

মাদারীপুরে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণে চলছে অনিয়ম

madaripur-12-10-16-different-types-rice-have-been-delivered-irregularities-3অজয় কুন্ডু, মাদারীপুর প্রতিনিধি: মাদারীপুর সদর উপজেলায় খোয়াজপুর ইউনিয়নে সরকারের খাদ্য সহায়তা কর্মসূচীর আওতায় ১০টাকার চাল মাপে কম দেয়ার অভিযোগ পাওয়াসহ একমাসে চাল দিয়ে পিছনের মাসের চাল ভেনিস করে দিচ্ছে বর্তমানে নতুন ডিলাররা। হতদরিদ্রদের মাঝে কার্ড বিতরণে স্বচ্ছতা না থাকায় অনিয়ম চলছে।
অনিয়মের কারণে খোয়াজপুর ইউনিয়নে সেপ্টেম্বর মাসের চাল বিতরণ করা হলেও এখনও অনেকে পায়নি সেই বিগত মাসের ৩০ কেজি চাল। এদিকে সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নে হতদরিদ্রদের প্রতি মাসের ৩০ কেজি চালের ৪ থেকে ৫ কেজি করে ওজনে কম দিয়ে ডিলারদের বিরুদ্ধে কালোবাজারে অবশিষ্ট চাল বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।
এদিকে সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মাথাভাঙ্গা বাজারে ডিলার রাজ এন্টারপ্রাইজে নান্নু মাতুব্বরের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। সেপ্টেম্বর মাসের হতদরিদ্রদের ৩০ কেজি চালের মধ্যে ৩ থেকে ৪ কেজি করে ওজনে কম দিয়ে অবশিষ্ট চাল কালোবাজারে বিক্রি করেছেন ডিলার কর্মীরা। এবং অক্টোবার মাসের চাল দেয়ার সময় গতমাসে যারা চাল না নিয়েছে তাদের কার্ডে দুই মাসের চাল বিতারনের তারিখ লিখে দিচ্ছে। এছাড়াও অভিযোগ উঠেছে একই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মঠের বাজার এলাকায় ডিলার জিয়াউর রহমান এন্টারপ্রাইজের পরিচালক পরিষদের বিরুদ্ধে, সেখানেও চলছে নজির বিহীন দুর্নীতি। সময় অনুসারে চাল আনতে গেলে চাল নেই বা আজ দেওয়া হবে না কাল আসবেন বলে জানিয়ে হয়রানির করছেন ডিলার পরিচালনা কর্মীরা। কিন্তু হতদরিদ্রদের ভুজুম-ভাজুর বুঝিয়ে ২ মাসের চাল এক মাসের তারিখ দিয়ে লিখে বিগত মাসের চাল ভেনিস করে দিচ্ছে ওই এলাকার ডিলার কর্মীরা। ফলে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে এলাকার শতশত হতদরিদ্র পরিবার।
madaripur-12-10-16-different-types-rice-have-been-delivered-irregularities-1এদিকে ডিলারদের বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন ওই এলাকার হতদরিদ্র পরিবারের কার্ড ধারীরা। তাদের সকলের দাবী এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হলে তারা হয়তো আগামীতে সঠিক পরিমানে সঠিক সময়ে ১০টাকা কেজি দরে ৩০ কেজি চাল ভোগ করতে পারবে। তাই তারা সরকারের দিকে বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষনের অনুরোধ জানান।
খোয়াজপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার নিলুফা বেগম বলেন, আমি যখন অনিয়ম দেখতে পাই সাথে সাথে প্রতিবাদ করি এবং চেয়ারম্যানের কাছে জানাই কিন্তু অনেক দিন হলেও সে কোন ব্যবস্থা নেইনি।

madaripur-12-10-16-different-types-rice-have-been-delivered-irregularities-2এদিকে ১০টাকা দামে চাল বিতারণ করার সময় হাতে নাতে ধরা পরে ডিলারের বিভিন্ন অনিয়ম এবং পরির্বতীতে কার্ডধারীদের প্রাপ্য পাওনা দিতে বাধ্য হয়। এতে খুশী হয়ে আবেগে কেদে ফেলে ভানু বেগম নামে এক দরীদ্র কার্ডধারী।
খোয়াজপুর ইউনিয়নে চাল বিতরণের ডিলার রাজ এন্টারপ্রাইজের পরিচালনা কর্মীদের এতো অনিয়ম হাতনাতে ধরা পড়ার পরও পরিচালক নান্নু মাতুব্বার সবকিছু অস্বীকার করে বলেন, আমরা কোন প্রকার অনিয়ম করছি না। সকল প্রকার নিয়ম মেনেই চাল বিতারণ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে খোয়াজপুর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মো. আলী মুন্সি চাল বিতরণের অনিয়ম হচ্ছে না বলে দাবী করে জানান, হতদরিদ্রদের মাঝে চাল বিতরণের কোন অনিয়ম আমার এলাকায় এখানো কোথায় ঘটেনি। যদিও আমার অযান্তে কোথায় তা ঘটে থাকে তাহলে ভুক্তভোগীরা আমার কাছে এখনো কোন অভিযোগ করেনি। তবে এ বিষয়ে আমি অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ঘটনার তদন্ত করে উপযুক্ত আইন আইনুক ব্যবস্থা নেবো।

Related posts