September 23, 2018

মাটিরাঙ্গায় কৃষকদল নেতাকে হত্যা!

বাড়ী ফেরার পথে উপজেলা কৃষক দলের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নজরুল ইসলামকে পিটিয়ে হত্যা

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: মাটিরাঙ্গা বিএনপির মেয়র প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণা শেষে বাড়ী ফেরার পথে উপজেলা কৃষক দলের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নজরুল ইসলামকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে আদর্শগ্রামের মো: আবুল হাশেম ও মো: সবুজ নামে দুই জনকে আটক করা হয়। বুধবার সকালের দিকে মো: মীর হোসেন নামে অপর একজনকে আটক করে পুলিশ।

এর আগে নিহত নজরুল ইসলামকে হত্যার ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে মাটিরাঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করেন নিহতের স্ত্রী শরিফা বেগম। নিহত কৃষকদলের নেতা নজরুল ইসলামের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করার পর বুধবার বিকেলে নিহতের লাশ দাফন করা হয়। বিএনপির জেলা উপজেলার নেতাকর্মীরা তার যানাজায় অংশ নেয়।

বিএনপির দাবী, হত্যাকারীরা নির্বাচন আসার পর থেকেই তাকে হুমকি-ধমুকি প্রদানসহ জানে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিএনপির মেয়র প্রার্থীর কাজ করায় তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবী নেতাকর্মীদের। ঘটনার দিন হাশেম, সবুজ ও মীর হোসেন গং রা তাকে নৌকার মিটিং-এ নিয়ে যায় এবং মিটিং শেষে তারাই তার আহততাবস্থায় বাঁশঝাড়ে পড়ে থাকার খবর দেয়। তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলেও সন্দেহ করেন নিহতের স্ত্রী।

নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রী মিনারা বেগম বলেন, পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যাক্তিটিকে হত্যা করে আমাদেরকে নি:স্ব করা হয়েছে। নির্বাচনই তার জীবনের কাল হয়ে দাড়িয়ে বলে জানান নিহতের পরিবার।

মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: সাহাদাত হোসেন টিটো ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে তিন জনকে আটকের কথা স্বীকার করে বলেন, কি কারণে হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে এবং কারা এর সাথে জড়িত তা আমরা বের করেছি। ঘটনার মুল হোতাকেও গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এর বেশী কিছু বলতে রাজি হননি তিনি।

এদিকে কৃষক দলের নেতা মো: নজরুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে বুধবার বিকেলে প্রতিবাদ সমাবেশ ডেকেছে মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপি। অন্যদিকে আওয়ামীলীগও নিহত নজরুল ইসলামকে নিজেদের কর্মী দাবী করে এ হত্যার প্রতিবাদে প্রতিবাদ সমাবেশ আহবান করেছে। তবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন ও পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার আশঙ্কা থেকে দুই দলকেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমাবেশ না করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

প্রশাসনের অনুরোধে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে তাদের পুর্ব ঘোষিত প্রতিবাদ সমাবেশ স্থগিত করা হলেও বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশ এখনো বহাল আছে বলে জানিয়েছেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক বদিউল আলম।

প্রসঙ্গত, মাটিরাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী বাদশা মিয়ার প্রচারণায় বাধা, কর্মীদের ওপর হামলা ও ভোটারদের হুমকির অভিযোগ তুলে নির্বাচনী এলাকায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবিতে মঙ্গলবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করার কয়েক ঘন্টা পরই এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

এ হত্যাকান্ডের পর মাটিরাঙ্গা পৌর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। নিহত নজরুল ইসলাম (রঙ মিয়া) ৪নং ওয়ার্ডের ইসলামনগর এলাকার চাঁন মিয়া সওদাগরের ছেলে এবং মাটিরাঙ্গা উপজেলা কৃষক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts