December 10, 2018

মাঝে মধ্যেই মন চায় দল ত্যাগ করতে কিন্তু পারিনা উনার জন্য

বিল্লাল হাওলাদার, সিঙ্গাপুর: বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে দেশের স্বাধীনতার জন্য যারা যুদ্ধ করেছিল, সেই মহান ব্যক্তিদেরকে বর্তমান আওয়ামীলীগ এমপিদের হাতেই মাইর খেতে হয়!!!

সেই আওয়ামীলীগ আর এই আওয়ামীলীগ, সেকাল (১৯৭৫-) আর একাল (২০০৯+) অনেক পরিবর্তন। ২০০৯ সালের নির্বাচনের পরেই অনুমান করেছিলাম বিএনপি বিলীন হবে ২০১৫-১৬ তে তার বাস্তবতা লক্ষণীয়। মাঠে নেই বিএনপি, বিরোধীদল সরকারের পক্ষে; তাহলে দেশে অরাজকতা তৈরী করছে কারা??? দেশব্যাপী দলীয় কোন্দল তার জন্য দায়ী নয়কি???

নিজ গ্রুপের পাল্লা ভারি করার জন্য ঐ বিএনপি/জামাতের লোকগুলো আওয়ামীলীগের কোন একটি গ্রুপের হয়ে কাজ করছে। আর তাদের পক্ষে সাফাই গাইছেন আওয়ামীলীগের নেতারা। ফলে ছাত্রলীগ, যুবলীগ সহ অন্যান্য সংগঠনে ছাত্রদল/শিবিরের অনুপ্রবেশ হচ্ছে। আর এই অনুপ্রবেশকারী ছাত্রলীগ, যুবলীগ নেতাদের হাতে মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধা নিরাপদ নয়। তারা মুক্তিযোদ্ধাদের মারলে বদনাম হয় ছাত্রলীগ, যুবলীগের। আর মিডিয়া সর্বদাই অপেক্ষা করে ছাত্রলীগের পাদের গন্ধ নিতে। দোষ করবে আওয়ামীলীগে গ্রুপকারী নেতারা যাদের প্রধান হাতিয়ার অনুপ্রবেশকারী। আর দোষ হচ্ছে ছাত্রলীগের। যেভাবে বিএনপি জামাতকে দলের টিকেট দেয়া হচ্ছে কিছুদিন পরে “আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্র ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ” হুমকির মুখে পড়বেনা তার নিশ্চয়তা কি???

যারা নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে ছাত্রলীগ সহ অন্যান্য আওয়ামী সংগঠনের জন্য কাজ করছে তারাই হুমকির মুখে পড়বে। কেননা অনুপ্রবেশকারীরাই বর্তমানে দলের ভালো অবস্থানে পৌছে যাচ্ছে। তারা যতটা চামচামি করতে পারে, আওয়ামী পরিবার থেকে উঠে আসা কোন কর্মী তার শতকরা এক ভাগ চামচামিও করতে পারে না। এরা আস্থা রাখে দেশরত্নের প্রতি আর অনুপ্রবেশকারী / চামচারা সম্মান দেখায় ভাইয়ের প্রতি। কোন উদাহরণ টানতে চাইনা। অনুপ্রবেশকারী চামচারা এখন ভালো আছে। দু’দিন পূর্বে দেখলাম পদ্মাসেতুর বড় টেন্ডার হাতিয়ে নিল বর্তমান যুবদল নেতা আর এখন তিনি যুবলীগ হচ্ছে হচ্ছে ভাব। এই ছেলেই যখন যুবলীগের হয়ে কোন মুক্তিযোদ্ধাকে আক্রমন করবে তখন দোষটা কার হবে??? মিডিয়ার হেডলাইন হবে “যুবলীগ নেতার আক্তমনে মুক্তিযোদ্ধা আহত/নিগত” এই ছেলে যখন কোন হিন্দু পরিবারে আক্রমন করবে! তখন নিউজের হেডলাইন কি হবে???

কারা হিন্দুদের উপর, মুক্তিযোদ্ধাদের উপর আক্রমন করছে??? ওরা সবাই আওয়ামী কোন্দলের ফসল।
মাঝে মধ্যেই মনে চায় দল ত্যাগ করতে কিন্তু পারি না ঐ শেখের বেটির জন্য। শেখের বেটির মুখটি দেখলে, তার একটা ছবি দেখলে কোথায় যেন আস্থা খুজে পাই। তাইতো ভালোবেসে যাই।
জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু
দেশরত্নেই আস্থা।

লেখকঃ বিল্লাল হাওলাদার (সভাপতি, সিঙ্গাপুর ছাত্রলীগ)

Related posts