September 23, 2018

মাকে হত্যা করলো আইএস সন্তানকে দুধ পান করানোর অপরাধে

সন্তানকে বুকের দুধ পান করানোর কারণে এক নারীকে হত্যা করেছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নারী সদস্যরা। হত্যা করার আগে তার অঙ্গ-প্রত্যঙ্গও বিচ্ছিন্ন করা হয়।

আল খানসা নামের আইএসের এই নারী বাহিনীটি সংগঠনটির ‘নারী গেস্টাপো’ নামে পরিচিতি। ধারণা করা হয়, প্রায় ৬০ জন ব্রিটিশ নারীর সমন্বয়ে গঠিত এই বাহিনীটি আইএসের স্বঘোষিত রাজধানী রাক্কা থেকে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে।

উল্লেখ্য, হিটলার জার্মানিতে তার শাসনকালে বিরোধীদের ওপর নির্যাতন চালাতে গোপন পুলিশ বাহিনী গেস্টাপো গড়ে তুলেছিল। তারা নানাভাবে নির্দোষদের ওপর নির্যাতন চালাতো। তাদের কার্যক্রমের সাথে মিল থাকায় আইএসের এই বাহিনীটির নাম দেয়া হয়েছে নারী গেস্টাপো।

যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম মিরর জানিয়েছে, এক নারী তার সন্তানকে বোরকার নিচে লুকিয়ে রেখে বুকের দুধ পান করাচ্ছিলেন। এ সময় আল খানসা ব্রিগেডের সদস্যরা তাকে শনাক্ত করে ফেলে এবং তার ওপর বর্বর শাস্তি আরোপ করে।

আইএসের নিয়ম অনুসারে, সন্তান জন্মের পর দুই বছর পর্যন্ত তাকে দুধ পান করানোরা জন্য অন্য নারী নিয়োগ দিতে হয়।

রাক্কা থেকে পালিয়ে আসা অপর নারী আয়েশা সানডে টাইমসকে বলেন, ‘এক নারী পুলিশ বাচ্চাটিকে নিয়ে অপর এক নারীর কাছে দেয় এবং তার মাকে হত্যা করে।’

পরবর্তীতে আইএস সমর্থিত একটি সামাজিক মাধ্যমে বলা হয়, মৃত্যুর আগে শরীর থেকে তার অঙ্গ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল।

আল খানসা ব্রিগেডটি নারীদের ওপর আইএসের কঠোর বিধান প্রয়োগ করে। যেসব নারী তাদের বিধান না মানে তাদের প্রহার করে ও চাবুকাঘাত করে এবং মেয়েদের যৌন দাসত্বে বাধ্য করে।

নারীদের পোশাকের ব্যাপারেও আইএসের রয়েছে কঠোর নিয়ম। প্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ে থেকে শুরু করে এর ওপরের বয়সের সবাইকে নিজেদের দেহ ঢেকে রাখতে দুইটি গাউন পরতে হয়। হাত ঢেকে রাখতে পরতে হয় কালো হাতমোজা। আর মুখ ঢেকে রাখতে তিনটি পর্দা দিতে হয়।

এসব নিয়ম না মানলে তাদের জনসম্মুখে জ্যান্ত কবর দেয়া হয়।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদী/ডেরি

Related posts