November 19, 2018

মসজিদ-মন্দির-মাজারসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে ক্যামেরা বসাচ্ছে সিএমপি

মসজিদ-মন্দির-মাজারসহ নগরীর বড় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করতে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বসাচ্ছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ। দর্শনার্থী বা সাধারণ মানুষের বেশে এসব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে ঢুকে দুষ্কৃতিকারীরা যেন কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে না পারে এজন্য নগর পুলিশ এ উদ্যোগ নিয়েছে।

দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় এক সপ্তাহের মধ্যে দুইটি মন্দিরে হামলা, বগুড়ায় শিবগঞ্জে শিয়া মসজিদে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে চলতি বছরের ৪ সেপ্টেম্বর বায়েজিদ বোস্তামি থানার বাংলাবাজারে মাজারে ঢুকে ল্যাংটা ফকির ও আব্দুল কাদের নামে দু’জনকে নৃশংসভাবে জবাই করে খুন করা হয়।
এর প্রেক্ষিতে চট্টগ্রামে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেয় মহানগর পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে নগরীর জেলরোড এলাকায় আমানত শাহ মাজারে ৮টি ক্যামেরা স্থাপনের মধ্য দিয়ে সিসিটিভি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিএমপি কমিশনার আবদুল জলিল মণ্ডল।
এসময় উপস্থিত ছিলেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম শহীদুর রহমান।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা সিসিটিভি স্থাপন শুরু করেছি। যেসব ধর্মীয় উপাসানালয়ে জনসমাগম বেশি হয় সেখানে ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। আমানত শাহ মাজারে ৮টি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। আরও ৭টি স্থাপনের কাজ চলছে। পর্যায়ক্রমে নগরীর বড় ধরনের মসজিদ, মন্দির, প্যাগোডা, গীর্জা, মাজারগুলোতে ক্যামেরা স্থাপন করা হবে বলে জানান তিনি।

ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা মনিটরিংয়ের বিষয়ে এ কে এম শহীদুর রহমান বলেন, ক্যামেরা স্থাপনের পুরো কাজটি মনিটরিং করছে নগর পুলিশ। এ কাজে খরচ বহন করছে মসজিদ বা মন্দির কর্তৃপক্ষ। এছাড়া পুলিশ ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে ক্যামেরা মনিটরিংয়ের কাজ করবে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts