October 20, 2018

মসজিদের নাম দিয়ে চাঁদপুরে রেলওয়ের জায়গায় দ্বিতল মার্কেট নির্মিত হচ্ছে

06_40168এ কে আজাদ, চাঁদপুর : চাঁদপুর শহরের অত্যন্ত ব্যস্ততম বাণিজ্যিক বিতান চাঁদপুর রেলওয়ে হকার্স মার্কেটের পাশে ১৬শ’ ফুট জায়গার উপর দ্বি-তল ভবন নির্মাণ করে ৩০টি দোকান বানিয়ে ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে মার্কেট কমিটির বিরুদ্ধে। এ মার্কেটের ৫ শতাধিক ব্যবসায়ীকে ধোকা দিয়ে ও বোকা বানিয়ে মসজিদ নির্মাণের নাম করে দ্বি-তল ভবন তৈরী করে মার্কেট নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে রেলওয়ের চট্টগ্রামস্থ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে রেলওয়ের লাকসাম কাচারীর ভারপ্রাপ্ত আমিন আবু সাইদ পাটওয়ারী চাঁদপুর মডেল থানায় আবদুল আজিজ দুদু, জয়নাল আবেদীন ও জাকির হোসেনের নামে মার্কেট কমিটির তিন জনকে আসামী করে চাঁদপুর মডেল থানায় গত শনিবার রাতে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। শাসক দলীয় একটি মহলের সাথে বিরুদী মতের কিছু লোকের যোগসাজসে নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে বলে হকার্স মার্কেট ব্যবসায়ীরা জানান। এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লাকসাম কাচারীর ভারপ্রাপ্ত আমিন মোঃ আবু সাইদ পাটওয়ারী।
রেলওয়ে হকার্স মার্কেটে ছোট বড় প্রায় ৫ শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তারই পাশে চাঁদপুরের উল্লেখ্যযোগ্য শহরের পানি নিস্কাসনের একমাত্র এসবি খালের কিছু অংশ দখলকওে খালের পাড়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে লীজবিহীন চাঁদপুর পৌরসভা থেকে কোনো প্রকার প্ল্যান পাশ না করে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে ১৬শ’ বর্গফুট জায়গার দখল করে এর উপর দ্বি-তল পাকা ভবন নির্মাণ করছে হকার্স মার্কেট কর্তৃপক্ষের কিছু লোভী মানুষ। মসজিদ নির্মাণের নামে ৩টি স্থানে ৩টি সাইনবোর্ড সাটিয়ে এ কাজ করা হচ্ছে। এই জায়গাটির নিচে পূবেই অ-বৈধ ভার্বে ২০টি দোকান নির্মাণ করা হয়। বর্তমানে এখানে দ্বি-তল ভবনের ছাদ ঢালাই দিয়ে সেখানে ৩০টি দোকান নির্মাণের কাজ চলছে। প্রতিটি দোকান থেকে ৮/১০ লাখ টাকা করে অগ্রিম হিসেবে মার্কেট কমিটি প্রায় ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে মার্কেটের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যবসায়ীরা জানান। হকার্স মার্কেট কমিটি যে ৩টি সাইনবোর্ড স্থাপন করেছে সেখানে লেখা রয়েছে মসজিদের কাজ চলছে, মুক্ত হস্তে সাহায্য করুন। অথচ হকার্স মার্কেটের পশ্চিম মাথায় রেলওয়ের জায়গায় বাইতুল আমিন নামে তৃতীয় তলা ভবন বিশিষ্ট একটি মসজিদ রয়েছে। পূর্বদিকে রয়েছে চিশতীয়া জামে মসজিদ নামে আরেকটি বড় মসজিদ। মসজিদের সাহায্যের নাম করে সাধারণ মানুষের চোখকে আই ওয়াশ করে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করার পর সেখানে ৩০টি বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করা হবে বলে ব্যবসায়ীরা জানান।
রেলওয়ের লাকসামের দায়িত্বরত ভারপ্রাপ্ত আমিন আবু সাইদ চাঁদপুর থানায় যে অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন তা থেকে জানা যায়, রেলওয়ের বাধা অমান্য করে কোর্ট স্টেশনের উত্তর পাশে রেলওয়ে হকার্স মার্কেটের পূর্ব দিকে খালের পাড়ে মাস্টার প্ল্যান বহির্ভুত স্থানে রেল ভূমিতে হকার্স মার্কেটের পাকা নির্মিত পাবলিক টয়লেটের উপরে ও পাশের্^ ১৬শ’ বর্গফুট রেলওয়ে ভূমিতে সেমি পাকা দোকানঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। যা রেলওয়ে জমিজমা নীতিমালা আইনের সম্পূর্ণ পরিপন্থী। তিনি মডেল থানাকে উপরোক্ত অভিযুক্ত ব্যক্তিগণের বিরুদ্ধে রেল ভূমির উপর অবৈধভাবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে হকার্স মার্কেটের পাশে সেমি পাকা দোকান ঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করাসহ অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানান।
অপরদিকে খবর নিয়ে জানা যায়, লাকসামের আমিন আবু সাইদ মার্কেট কর্তৃপক্ষের সাথে গোপনে হাত মিলিয়ে বর্তমান হকার্স মার্কেট কমিটির দায়িত্বরত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র না দিয়ে সাবেক কমিটির কর্মকর্তাদের মধ্যে ৩ জনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগটি করে রেলওয়ের সাথে প্রতারণা করেছে।
এ ব্যাপারে মার্কেটের দায়িত্বরত নির্বাচিত সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু জানান, মার্কেট ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে এখানে মসজিদের স্থান নির্মাণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, নির্মাণ কাজের ব্যয় হকার্স মার্কেটের ব্যবসায়ীরা বহন করছে।
এ ব্যাপারে রেলওয়ে হকার্স মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন মৃধা জানান, ব্যবসায়ীদের নামাজের সমস্যা হচ্ছে চিন্তা করে আমরা মার্কেটের পাশে দ্বি-তল ভবন বানিয়ে সেখানে নামাজের জন্য জায়গার স্থান নির্মাণ করছি। হকার্স মার্কেটের পূর্ব পশ্চিম দিকে বাইতুল আমিন ও চিশতিয়া জামে মসজিদ রয়েছে। সেখানেই তো ব্যবসায়ীরা নামাজ আদায় করতে পারে। তখন তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা সেখানে না গিয়ে রেল লাইনের পাশে প্রতি রমজানেই তারাবিহ নামাজ আদায় করে থাকে। তাই তাদের নামাজের কথা চিন্তা করে এখানে মসজিদের স্থান নির্মাণ করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে রেলওয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) জাহাঙ্গীর আলমের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, এ ধরনের মার্কেট নির্মাণ হচ্ছে বলে আমার জানা নেই। রেলওয়ে জায়গায় অবৈধভাবে যে কোন প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করা হলে তা ভেঙ্গে ফেলা রেলওয়ের আইনে রয়েছে। আমি খোঁজ খবর নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে অবৈধ মার্কেট নির্মাণের ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

Related posts