September 24, 2018

মনের কষ্টেই হার্ট ব্রেক হয় না; মনের সুখেও হয়

ডা.তাজুল ইসলামঃ কখনো কখনো হৃদয়ের যন্রনা এতো ভারবহ, পীড়াদায়ক হতে পারে যে হৃদয় ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায়।ডাক্তারী ভাষায় একে “Broken heart syndrome”বলা হয়।এর আরো কিছু কেতাবী নাম রয়েছে: Tokotsubo Syndrome বা Stress Cardiomyopathy।
এ রকম ক্ষেত্রে হৃদ-পিন্ডের মাংস পেশী দ্রত ও ভীষন দুর্বল হয়ে পড়ে।সাময়িক এ অসুস্হতার সময় বুকে তীব্র ব্যাথা হয়, এমনকি হার্ট এট্যাক হয়ে মৃত্য পর্যন্ত হতে পারে।

তবে শুধু মাত্র হৃদয় বিদারক ঘটনায়ই এ রকম সিনড্রম তৈরী করে তা নয়; আনন্দদায়কও সুখের ঘটনায় ও ব্রোকেন হার্ট সিনড্রম তৈরী করতে পারে—এ রকম তথ্যই জানিয়েছেন ইউরোপিয়ান হার্ট জার্নাল।ইউরোপিয়ান হার্ট জার্নাল এর বরাত দিয়ে এ গবেষনা তথ্যটি প্রকাশিত হয়েছে।

এই গবেষনাটি সইজারল্যান্ডের International Tokotsubo registry at university Hospital Zurich-এ করা হয়।

৯টি দেশের ৪৮৫ জন ব্রোকেন হার্ট সিনড্রমের রোগীর উপর এ গবেষনা করা হয়।
ফলাফলে দেখা যায় ৯৬%(৪৬৫ জন) এর ক্ষেত্রে ব্রোকেন হার্ট সিনড্রম হয়েছে বেদনাদায়ক ঘটনার কারনে।যেমন:কেোন প্রিয় জনের মৃত্যু; দুর্ঘটনা; অসুস্হতা নিয়ে উদ্বেগ;সম্পর্ক জনিত জটিলতা।

তবে ৪%(২০ জন) এর ক্ষেত্রে এ সিনড্রম তৈরী হয়েছিল আনন্দদায়ক ঘটনার পর।যেমন:জন্ম দিনের উৎসব;বিবাহ উৎসব;নাতী/নাতনীর শুভ জন্মের ঘটনা শুনে এমনকি নিজের পছন্দের দল জয় লাভ করেছে শুনেও এ রকম এট্যাক হয়েছিল।

গবেষকরা সুখের ঘটনায়ও এমনটি হওয়ার কারনে একে বলেন”Happy Heart” cases। যদিও এ সংখ্যা খুবই কম তথাপি এটা স্পষ্ট যে মানসিক চাপ হৃদ পিন্ডের স্বাস্হ্যের উপর সরাসরি প্রভাব ফেলে।

লেখকঃ প্রফেসর তাজুল ইসলাম -প্রফেসর অব সাইকিয়াট্রি, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ মেন্টাল হেলথ, শেরে বাংলা নগর, ঢাকা। 

Related posts