September 18, 2018

মতলব-কচুয়ায় সিল মারার মহোৎসব

ঢাকাঃ  জেলার মতলব উত্তর ও কচুয়া উপজেলায় ২৪টি ইউপিতে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে জিম্মি করে নৌকা প্রতীকে সিল মারার মহোৎসব হয়েছে। এসব ঘটনায় ৩ জনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার (২৮ মে) উপজেলায় উপজেলার ৯নং জহিরাবাদ এবং ১০নং ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নে এসব ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কচুয়ায় চলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ও নিজ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের কেন্দ্র দখল ও জাল ভোটের মহোৎসব। সেখানে, যে যেখানে পেরেছে সেখানেই কেন্দ্র দখল করে নিজেদের প্রতীকে সিল মেরে ভোটগ্রহণ করিয়েছে।

অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রেই বিএনপির প্রার্থীদের দেখা যায়নি। ২/৩টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের অতিরিক্ত বিদ্রোহী প্রার্থীর কারণে জয়ের স্বপ্ন দেখছিলেন বিএনপি প্রার্থীরা। এজন্য দলটির নেতাকমীদের নিরাপদ দূরত্বে থেকে কৌশলী অবস্থান করতে দেখা গেছে।

সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মতলব উত্তর উপজেলার ৯নং জহিরাবাদ ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ চললেও বেলা ১১টার দিকে দৃশ্যপট পাল্টে যায়। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলী আক্কাছ বাদলের সমর্থকরা বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে ঢুকে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী অ্যাডভোকেট মনঞ্জুর মোশেদের লোকজনদের বের করে দিয়ে নৌকা প্রতীকে গণহারে জাল ভোট দিতে থাকেন। এতে দু’গ্রুপে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

এছাড়া ১০নং ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নে নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অপরাধে অপরাধে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে লুধুয়া এলাকার বাদশা পাটওয়ারী, ইলিয়াছ প্রধান এবং পারভিন আক্তারকে ১ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৮ মে ২০১৬

Related posts