April 25, 2019

মগজহীন মেধা- (শ্রদ্ধেয় হাছান ফেরদৌসকে ) জুলি রহমান

psychology

সভাসদে কথা ওঠে বুদ্ধীহীন
বুদ্ধাংকের গড় নিয়ে ; কী রাজনৈতিক। কী ব্যাক্তিক, কী লেখক মগজহীন  মেধায় ভরপুর। বিদ্যার জাহির—

ধার করা অভিজ্ঞতা আর জ্ঞাণের জৌলুষ
টিকে না ধূপে ;একথা বলেছেন প্রবীন।
তবে মানুষেরা হাঁটে কোন পথে?
নীতি বাদ দিলে সততা কী ঠাঁই পায়
সত্যের কূলে?অথচ আপোষ এখন ঐখানে!
চোর এখন ধীমান ডিজিটাল ।চতুর ইঁদুর
থাকে নেটের বলয়ে।স্মাটর্ কাকে বলি?
প্রযুক্তি? নীতি? সততা মিথ্যাচার? লাজহীন
বেয়াদব? একই ভাবে লেখক সমাজ সেবক
রাজনৈতিক চরিত্র!

প্রাচীন অভিজ্ঞতার ঝুলিতেও হেমলক।
ভেবে তাই হয়রান।নেইতো যুগের সক্রেটিস।
দাঁড়াবে কোথায় মানুষ?খুলবে কোথায় বুদ্ধির জট?

এ ভাবে অরণী সংকেত ও নয়।
বদলে দিলে গল্পের প্লট
আমিত্বকে ছেঁটে দিলে ঢেকি ছাঁটা
চালের মতো বিশুদ্ধ হয় কী মনন?

অন্ধকার ঘুলঘুলি ;খ্রীস্টাব্দ উত্তোরণ!
মেধাবী ওরাই তখন পান্তা আর শাকে।
বাগর্ার হট সসে সুইট এ্যান্ড সুগারে মূত্র
যতো ঝরে  সময় তাপে;বিবর্তন খোলসে।
ইচ্ছে করলেই মুক্তি মেলে না ,কঠিন যাজকে।
হে শ্রদ্ধেয়, নিজেকে করে নয় খাটো।
মানুষ আমি শ্রেষ্ঠ্য নীতিতে ;আর কিছু
লাগে না তাই মেকী  বেলোয়ারীতে।

Related posts