November 22, 2018

ভিডিও সংবাদ: গুলশানে হামলাকারীদের নিয়ে আইএসের নতুন ভিডিও

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক তথাকথিত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) রাজধানীর গুলশান হামলার উপর একটি নতুন ভিডিও প্রকাশ করেছে। গত ১ জুলাই ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় হামলার পর কমান্ডো অভিযানে নিহত পাঁচ জঙ্গির কথাবার্তা, হামলার ঘটনা এবং আইএসের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে বক্তব্য তুলে ধরা হয় বাংলা ভাষায় তৈরি এই ভিডিওতে।

ভিডিও’র শেষ অংশে গুলশান হামলায় পুলিশের অভিযানে নিহত পাঁচ জঙ্গির বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে। ১৪ মিনিট ৫৮ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে আরবির পাশাপাশি বাংলাতেও বক্তব্য রাখা হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গি তৎপরতা নজরদারি সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স আইএসের কথিত সংবাদ সংস্থা আমাক-এর বরাত দিয়ে শুক্রবার দিবাগত রাতে এ ভিডিও প্রকাশের তথ্য জানিয়েছে।

ভিডিওটিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া, কয়েকজন ধর্মীয় নেতাসহ বেশ কয়েকজনের সমালোচনা করে বক্তব্য দেওয়া হয়েছে।

বাংলা এই ভিডিওতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনসহ বিশ্বনেতাদের ‘কাফের’ হিসেবে চিহ্নিত করে বলা হয়, মুসলিমদের তাদের প্রতি কঠোর হতে হবে।

গুলশানে হামলার কারণ প্রসঙ্গে ভিডিওতে বলা হয়েছে, মুসলিম নারী, পুরুষ ও শিশুদের রক্তে রঞ্জিত ক্রুসেডাররা মুসলিমদের প্রতি তাদের চরম উপহাস হিসেবে বাংলাকে তাদের মনোরঞ্জনের স্থান হিসেবে বেছে নেয়। তাই তারা ৫ জন ঢাকার গুলশানে হামলা চালিয়েছিল।

গুলশান হামলার প্রায় তিন মাসের কাছাকাছি সময়ে এসে হামলাকারী সন্দেহভাজন জঙ্গিদের মৃতদেহ গত বৃহস্পতিবার দাফন করা হয়। এরপর এই ভিডিও প্রকাশ করে আইএস।

ভিডিওতে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় কয়েকজন ধর্মীয় নেতার কথা বলা হয়েছে। যেমন শোলাকিয়া ঈদ জামাতের ইমাম ফরিদউদ্দিন মাসুদকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে যে, তিনি আসলে সরকারের পক্ষে লোক। এছাড়া শেখ হাসিনা এবং খালেদা জিয়া দুজনকেই উদ্দেশ্য করে ভিডিওতে বলা হয়েছে, তারা তাগুদ বা ইসলামের শত্রু।

ভিডিওটির দ্বিতীয় অংশে গুলশান হামলার ঘটনায় নিহত পাঁচজন জঙ্গি কালো পাঞ্জাবী এবং মাথায় বিশেষ ধরণের স্কার্প পড়ে আইএস এর পতাকার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছেন। এ ধরণের স্থির চিত্র আগে প্রকাশ হয়েছিল। এখন ভিডিওতে তারা কথা বলছেন। তারা একজন করে কথা বলছেন, তখন তার হাতে একে ৪৭ রাইফেল এবং ছুরি দেখা যায়। তারা কোরান-হাদিস থেকে বিভিন্ন উদ্ধৃতি তুলে ধরেন।গুলশানে রেস্তোরাঁয় হামলা করার পক্ষে তারা তাদের যুক্তিও তুলে ধরেন।

নিহত হওয়ার পর এই জঙ্গিদের যে নাম বা পরিচয় সকলে জেনেছে। সেই নাম নয়। ভিডিওতে তাদের পোশাকি নাম ব্যবহার করা হয়।

গত ১ জুলাই রাজধানীর হলি আর্টিসান বেকারিতে জঙ্গি হামলার ২০ জন নিহত হন। জঙ্গিবিরোধী অভিযানে অংশ নেওয়া দুই পুলিশ কর্মকর্তাও এ ঘটনায় নিহত হন। পরদিন সকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যৌথ অভিযানে ৫ জঙ্গিসহ ৬ জন নিহত হন। সূত্র: বিবিসি।

Related posts