September 22, 2018

ভাষাসৈনিক তোফাজ্জল হোসেনের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী

তারিক সুজাতঃ আগামীকাল ৫ ডিসেম্বর ২০১৬ কবি-লেখক-সাংবাদিক ও একুশে পদকপ্রাপ্ত ভাষাসৈনিক তোফাজ্জল হোসেন-এর ১ম মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি ১৯৩৫ সালে ৯ অক্টোবর কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার তালেশ্বর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।
ছাত্রজীবন থেকে প্রগতিশীল রাজনীতিতে সক্রিয় তোফাজ্জল হোসেন এদেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামসহ ভাষা আন্দোলনের একজন বিশিষ্ট কবি ও গীতিকার হিসেবে ভূমিকা পালন করেছেন।

ক্রীড়া, সংস্কৃতি, সাহিত্য, সাংবাদিকতাসহ জাতীয় জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গত ছয় দশক ধরে তাঁর বলিষ্ঠ পদচারণা ছিল। চাকুরিজীবনে তিনি বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান তথ্য কর্মকর্তা হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি বিশ্বব্যাংক ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট, বিআইডিএস ও বাংলা একাডেমির ফেলো ছিলেন। তিনি সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ভাষাসৈনিক সম্মাননা, পদক্ষেপ, পদাতিক-এর সম্মাননা ছাড়াও ঋষিজ পদক ও একুশে পদক ২০১৩ পেয়েছেন।

তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থসমূহ ‘হৃদয় রক্তরাগে’, ‘একুশ ভুবনময়’, ‘নতুন যুগের ভোরে’, ‘কবিতাসমগ্র’ কাব্যগ্রন্থসহ আরো বেশ কয়েকটি গবেষণাধর্মী গ্রন্থের (জনসংখ্যা বিস্ফোরণ ও আগামী পৃথিবী; শিশু : বিশ্ব ও বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট; বিপন্ন পৃথিবী বিপন্ন জনপদ; কাশ্মীর : ইতিহাস কথা কয়; সাফল্যের সন্ধানে; জাতিসংঘ ও লিন্ডন জনসন)। সংগীত এবং অন্যান্য সৃষ্টিশীল সাহিত্যেও সমান কৃতী। ১৯৫৩ সালে কবি হাসান হাফিজুর রহমান সম্পাদিত অমর ‘একুশে ফেব্র“য়ারী’ সংকলনে ঐতিহাসিক যে দু’টি গান সংকলিত হয়েছিল তার একটির রচয়িতা।

আগামীকাল ৫ ডিসেম্বর ২০১৬ সোমবার বাদ মাগরিব শ্যামলীস্থ নিজ বাসভবনে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে সকল শুভানুধ্যায়ীদের কাছে দোয়া প্রার্থনা করা হয়েছে।

 

 

Related posts